ওরা বুঝে গেছে বড় অসহায় আমি,
ঝড়ের রাতের নিভু নিভু হারিকেনের আলোর মতো
কখন নিভে যাবে সেই আলো,
ওরা ছাড়া কেউ জানে না,
কেন আমার এলোমেলো ধূসর মরুর তপ্ত জীবন,
কেউ জানে না আমার কেন বক্ষে বিদ্ধ অগ্নিবাণের জ্বালা,
কেউ বুঝতেও চায়নি আমার তরুণ মনের অস্থিরতা,
আজ স্বপ্ন ভঙ্গের রহস্যময় নিষ্ঠুর আমার নিয়তি,
তাই ওরা বুঝে গেছে,
কতোটা কাঙাল আমি।


জীবনটা স্বপ্ন হতো যদি,
তবে সাজিয়ে নিতাম নতুন করে,
শূন্যতায় ভরা শূন্য এই সংসারটাকে
গড়ে নিতাম মন ময়ূরের সমস্ত মাধুরী ঢেলে।


বৈচিত্র্যহীন আঁধার জীবন ছুটে চলছে প্রতিক্ষণ,
প্রকৃতির নিষ্ঠুর সময়ের সাথে,
নাটাইবিহীন উড়ন্ত ঘুড়ির মতো ছুটছে,
আর প্রতিনিয়ত করছে বিমূর্ত উপহাস,
এমনি দিনে তুমিও বাড়ালে না বন্ধুত্বের কোমল হাত,
কেননা তুমিও বুঝে গেছো কতোটা অসহায় আমি।


চোখের জলে যদি উল্লাসিত হও
ফিরেও তাকাবো না আর,
তুমি কি জানো?
আমিও কষ্ট সইতে জানি,
দেখো তুমিও একদিন বৃষ্টি ঝরা শূন্য প্রহরে,
কপোল ভাসাবে চোখের জলে।
        ---- ০ ----


কাব্যগ্রন্থ: প্রহর কাটে নীলকণ্ঠের ভালোবাসায়
প্রকাশকাল: একুশে গ্রন্থমেলা, ফেব্রুয়ারি ২০১৩
প্রকাশক: মাজেদুল হাসান, জয়তী পাবলিকেশন