হায়রে আমার সর্বগ্রাসী অসমাপ্ত প্রেম,
তুমি কখনো দিবে স্নিগ্ধতার হাসি,
কখনো দিবে অশ্রু ঝরা কান্না,
বেঁচে থাকার নির্মল আশার স্বপ্নগুলো
এক নিমেষে করে দিবে ধ্বংস যজ্ঞ,
আবার হৃদয়ের সুপ্ত প্রেম লুণ্ঠিত করে
জাগিয়ে দিবে প্রণয়ের অনন্ত নেশা।


তুমি কখনো দিবে বিরহ যন্ত্রণা,
কখনো দিবে প্রণয়ের প্রবল হাতছানি,
আমার অন্তর গহিনের রক্তিম স্পন্দন,
জাগিয়ে দিবে রক্তের প্রতি কণিকায়,
আবার কখনো ভাসিয়ে নিয়ে যাবে
বহমান প্রণয় স্রোতের প্রতিকূলে।


তুমি কখনো দিবে জ্যোৎস্নার আলো,
কখনো দিবে অমাবস্যার ঘোর অন্ধকার,
হৃদয়টাকে বানিয়ে দিবে জ্বলন্ত শ্মশান
জ্বালিয়ে পুড়িয়ে ছাই করে দিবে নিমেষে,
আবার কখনো ভাসিয়ে নিয়ে আসবে
বহমান প্রণয় স্রোতের অনুকূলে।


হায়রে আমার সর্বনাশী নির্লিপ্ত প্রেম,
তুমি কখনো দিবে প্রণয়ের অমৃত সুধা,
কখনো দিবে অন্তরাত্মার গুপ্ত অনুচিন্তা,
আমার মনুষ্যত্বকে নিত্য করবে বিসর্জিত,
তাড়িয়ে নিয়ে যাবে নিষিদ্ধ আঁধার জগতে,
আবার কখনো প্রনয়ের দীপশিখা জ্বেলে
ফিরিয়ে দিবে আমার অশান্ত ভালোবাসা।
          ---- ০ ----


কাব্যগ্রন্থ: প্রহর কাটে নীলকণ্ঠের ভালোবাসায়
প্রকাশকাল: একুশে গ্রন্থমেলা, ফেব্রুয়ারি ২০১৩
প্রকাশক: মাজেদুল হাসান, জয়তী পাবলিকেশন