শূন্যতায়-
আকাশের জমিনে বৈশাখী মেঘের চঞ্চলতায়,
অলস বিকেলগুলো বিষণ্ণতায় পেরিয়ে যায়।
অপূর্ণতায়-
তোমার চেনা মুখটি যখন অচেনা হয়ে যায়,
ছলছল আঁখি দুটি তখন জলে ভেসে যায়।
অনিদ্রায়-
অতীত স্মৃতির জমানো যতো প্রণয় স্পন্দন,
জেগে উঠে দেহের প্রতিটি শিরায়-উপশিরায়।
আড্ডায়-
বন্ধুদের কথাবার্তার উত্তেজনা যখন বেড়ে যায়,
তখনও এই মন পড়ে রয় শুধু তোমারই আঙিনায়।
আকাঙ্খায়-
তীরে বিদ্ধ মন শুধু তোমাকেই ফিরে পেতে চায়,
ঘুম পাড়ানী সেই নরম হাতের কোমলতায়।
কল্পনায়-
শুধু তুমি আমি ভেসে বেড়াই প্রণয় সাগরের ভেলায়,
সারাবেলা দুজনার কাটে ভালোবাসাবাসির খেলায়।
যন্ত্রণায়-
যতোবার তোমাকে এই হৃদয় থেকে মুছে দিতে চাই,
তারও বেশী শুধু তোমারই বদনখানি মনে পড়ে যায়।
সান্ত্বনায়-
ভুল ভেঙ্গে গেলে যদি আবার তুমি আসো ফিরে,
বুকের জমিনে গড়বো বসত রঙিন আশার দোলায়।
কামনায়-
পুরানো সব স্মৃতির ক্ষত ছুড়ে দেবো অন্তর বাহিরে,
যদি তুমি ফিরে আসো হৃদয়ের রক্তিম ঠিকানায়।
ব্যর্থতায়-
এলোমেলো এই মন তপ্ত মরুর আজন্ম তৃষায়,
অনাদরে অজানার পথে নির্বাসিত হয়ে যায়।
বেদনায়-
চিৎকার করে ঐ নিষ্ঠুর প্রকৃতির দ্বারে মিনতি জানাই,
একটিবার আমার ভালোবাসা ফিরিয়ে দাও আমায়।
প্রতীক্ষায়-
আগামীর সুন্দর সোনালী সুখের দিনের আশায়,
এই অশান্ত হৃদয়ে কাল বৈশাখীর ঝড় বয়ে যায়।
                ---- ০ ----


কাব্যগ্রন্থ: প্রহর কাটে নীলকণ্ঠের ভালোবাসায়
প্রকাশকাল: একুশে গ্রন্থমেলা, ফেব্রুয়ারি ২০১৩
প্রকাশক: মাজেদুল হাসান, জয়তী পাবলিকেশন