খুব ইচ্ছে করে ,
তোমার কপোল ছুঁয়ে বৃষ্টির ফোঁটায় ভিজতে,
এসো না-
বৃষ্টির রিমঝিম সুরের মাতনে,
কান পেতে,
হৃদয় গহিনের মৃদু কম্পন শোনা যাবে।
খুব ইচ্ছে করে,
দূর পাহাড়ের পথিক হয়ে ঘুরে বেড়াতে,
এসো না-
প্রকৃতির অনাবিল সৌন্দর্য মিলনে,
দুজন মিলে
ঝরনার শীতল জলে স্নান করা যাবে।


খুব ইচ্ছে করে,
তোমার স্নিগ্ধ কোমল স্পর্শে নাগরদোলায় চড়তে,
এসো না-
পদ্ম দীঘির মেলার ভিড়ে,
হৃদয় ভরে,
বাঁশরিয়ার সুরেলা বাঁশির সুর শোনা যাবে।
খুব ইচ্ছে করে
জ্যোৎস্নার আদরে তোমার কোলে বসত গড়তে,
এসো না-
পুষ্প উদ্যানের ভরা পূর্ণিমায়,
দুজন মিলে,
প্রহর শেষের শিউলি ঝরা দেখা যাবে।


খুব ইচ্ছে করে,
তোমার আঁচল ছুঁয়ে ঝাউ বনের পথ ধরে হাঁটতে,
এসো না-
ঝরা পাতার মরমর শব্দে,
চলতে চলতে,
নীড়ে ফেরা পাখিদের কলতান শোনা যাবে।
খুব ইচ্ছে করে,
শুভ্র শীতল বরফের পাদদেশে ঘুরে বেড়াতে,
এসো না-
তুষার ঝরা হিমেল বিকেলে,
দুজন মিলে,
প্রেমময় উষ্ণতায় হৃদয় ভরিয়ে নেয়া যাবে।


খুব ইচ্ছে করে,
তোমার অনামিকা ধরে সমুদ্র জলে ভাসতে,
এসো না-
সমুদ্রের উত্তাল ঢেউয়ের দোলায়,
চোখ মেলে,
সূর্যাস্তের শৈল্পিক লালিমা উপভোগ করা যাবে।
খুব ইচ্ছে করে,
ভোরের শিশির ভেজা সবুজ প্রান্তরে হারাতে,
এসো না-
উদয়ের রক্তিম আভার স্পর্শে,
দুজন মিলে,
একটি নতুন দিনের সূচনা করা যাবে।
         ---- ০ ----


কাব্যগ্রন্থ: প্রহর কাটে নীলকণ্ঠের ভালোবাসায়
প্রকাশকাল: একুশে গ্রন্থমেলা, ফেব্রুয়ারি ২০১৩
প্রকাশক: মাজেদুল হাসান, জয়তী পাবলিকেশন