হঠাৎ দেখা, অনেক দিন পর, মাঝে  মাঝে দেখা হয়েছে কোন ব্যস্ত রাস্তায়, বা ভীড়ের মধ্যে,, বা অনেক দূর  থেকে একপলকের জন্য।


সেই ভাবে কিছু  বলা হয়ে উঠেনি, বা বলার কোন ইচ্ছা প্রকাশ হয়নি।
তোমার সেই ঘন কালো কেশ,
তোমার কালো হরিণ চোখ, অধর,
সেইভাবে দৃষ্টিপাত হয়ে ওঠেনি।


দেখা হল সেই রেলগাড়ির কামরায়,
পাশাপাশি  বসে দুইজন  ছুটলাম  একই দিকে।
অনেক কথা হল, গল্প হল, পূরানো  দিনের ফেলে আসা কতই কথা।


তখনো  তোমায় ভালোবাসার নেত্র দৃষ্টিতে চেয়ে দেখিনি।
হঠাৎ ভীর রেলগাড়ির কোণঠাসা কামরায়,
তোমার সন্নিকটে, অতলষ্পর্শ কহুধ্বনি,
তোমার সেই কালো চুল,
উজ্জ্বল  তারার ন্যায়  গোলমুখখানি,
আমার হৃদয়ে প্রথমবার  দোলা দেয়।


যেন কত কালের চেনামুখ, ভালবাসার এক অতলস্পর্শ,
ভালবাসার নতুন ছোঁয়া  হৃদয়ের মাঝখানে,
হৃদয়ের আঙিনায় তুমি নতুন করে বাসা বেধেঁছ।


গন্তব্যস্থলে এসে ছেড়ে চলে গেলে
এক কালবৈশখীর ঝড় যেন হৃদয়ের বাসাটা উড়িয়ে নিয়ে চলে গেল, কোন এক শূন্য আকাশে।


বলা গেল না, আর জানি না দেখা হবে কি,
একটু চুপ, আকাশের দিকে চেয়ে,
রেলগাড়ির সেই দৃশ্য  নিয়ে, নিজেকে শান্ত করে,
আমি আবার একা চললাম।