৭৭-৭৮
১) কবিতা : মধ্য দুপুর
কবি : খন্দকার মো: আকতার উজ জামান সুমন


চলার পথ মসৃণ নয় l মাঝপথে বিপর্যয় আসে l মানুষও সহজে হাল ছেড়ে দেয় না l  সেই বিপর্যয়ের সঙ্গে সংগ্রাম চলে l কষ্ট গোপন করে, দুর্বল দেহে ধীরগতিতে এগোতে চায় সে l কিন্তু বিপদ বিপর্যয়ের এক একটা ধাক্কায় সে থমকে যায় l আতঙ্কিত হয় l প্রচুর ক্ষয়ক্ষতি স্বীকার করতে হয় l শারীরিকভাবে, মানসিক ভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে l দীর্ঘ দিনের শ্রম, অধ্যবসায়, প্রস্তুতি মাঠে মারা যায় l বহুদিনের কাজের ফল মিলিয়ে যায় l কিন্তু তবু মানুষ ভেঙ্গে পড়ে না l আপন বিশ্বাসে অশ্রু পান করে শিরদাঁড়া সোজা করে আবার চলতে শুরু করে l বেঁচে থাকার লড়াই চলতেই থাকে l জীবন সংগ্রামের গল্প l অনেক অনেক ব্যর্থতা সত্বেও মনোবল না হারিয়ে অনর্গল এগিয়ে চলার গল্প l বাধা বিপত্তি বিপর্যয় মোকাবিলা করে,  ক্ষতি স্বীকার করেও সামনে চলার গল্প l
ভালো কবিতার জন্য "মধ্য দুপুর" কবিতার কবি
খন্দকার মো: আকতার উজ জামান সুমন মহাশয়কে অভিনন্দন l


২) কবিতা : এরা সুখের লাগি
কবি : ফারহাত আহমেদ
কবিতাটির লিঙ্ক :
http://www.bangla-kobita.com/farhatahmed/era-sukher-lagi/


কবির যে কয়টি কবিতা পড়লাম, ছোট্ট আকারের কবিতাগুলিতে বেশ ছন্দের তালে দেখলাম একটি করে সুন্দর বার্তা দিয়েছেন l অন্য কবিতাগুলির মতো এই কবিতাটিতেও দেখি, পর্যবেক্ষণ নির্ভর অভিজ্ঞতায় তিনি এক বা একাধিক সিদ্ধান্তে আসছেন l
মানুষ অভ্যাসের দাস l যে যেমন পরিবেশে বাস করে, যেমন জীবনযাপন করে, সেই অনুরূপ তার অভ্যাস গড়ে ওঠে l অন্য ধরনের জীবন যাপনেরও যে অস্তিত্ব আছে, তারও যে মর্যাদা আছে সে উপলব্ধি তার হয় না l প্রাসাদে বসবাসকারী ব্যক্তি, গৃহহীন, যারা খোলা আকাশের নিচে বাস করতে বাধ্য হয়, তাদের মানুষ বলে গণ্যই করেন না l যাদের ঘরে প্রচুর খাবার, তাদের খিদে পায় না l ক্ষুধা বস্তুটি কি, এই ধারনাই আসে না তাদের l এদের কাছে দরিদ্র মানুষের কথার কোনো মুল্য নেই l অর্থটাই এদের কাছে সব l বাণিজ্য ছাড়া এরা কিছু বোঝেন না l অর্থাৎ সব কিছুকেই তারা অর্থের মূল্যে বিচার করেন l মানুষের প্রেম, ভালবাসার এদের কাছে কোনো মুল্য নেই, যদি টাকার জোর না থাকে l
"এরা সু‌খের লা‌গি" কবিতাটিতে কবি  ফারহাত আহমেদ বিষয়গুলি সুন্দর ফুটিয়ে তুলেছেন l
সুন্দর ছোট্ট কবিতাটির জন্য কবিকে জানাই আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন l