১০৫.
প্রেম ভালবাসা চিরন্তন l অনুভবে প্রকাশে বিচিত্রতার রঙ l ব্যক্তি ভেদে প্রেমের অনুভব ভিন্ন l তার প্রকাশও ভিন্ন l যুগ যুগ ধরে কাব্য সাহিত্যে তারই অনুরণন, শব্দঝংকার l কল্পনার বিস্তারে সৃষ্ট প্রেমের নানা স্তরের  চিত্রকল্প, সম্পর্কের নানা টানাপোড়েন, প্রেম অভিব্যক্তির   নানান রসবোধ পাঠককে মোহিত করে রেখেছে l


"অদৃশ্য সাঁকো বেয়ে" কবিতাটিতে কবি অনিরুদ্ধ বুলবুল এরকম এক আলো আঁধারি প্রেমের জগতে পাঠকদের নিয়ে গেছেন মনকে পথপ্রদর্শকের ভূমিকায় রেখে l


মন কারো কথা শোনে না l যাকে মনে ধরে, মন তার পিছু নেয় l আশান্বিত হয়ে চড়াই উৎড়াই বাধা ডিঙ্গিয়ে তাকে অনুসরণ করে l
যার অনুসরণ হচ্ছে তাকে স্পষ্ট দেখা যায় না l ঘুরে ফিরে বারে বারে মনের আঙ্গিনায় তার ছায়া উঁকি মারে l সৌন্দর্য সৌরভের অসীম ভাণ্ডার তার, গোপনে, ইঙ্গিতপূর্ণ ইশারায় মনকে সে মোহিত করে l
হৃদয়ের নিভৃত কোণে ভালোবাসার অনুভূতি জাগে l দূরদেশ থেকে সাঁকো পেরিয়ে আলো-উজ্জ্বল আকাশ-সমান নিঃসীম ভালোবাসা বিকশিত যৌবনকে নাড়া দেয় l হৃদয় মন জুড়ে ভালোবাসার মধুর আবেশ ছলকে ওঠে l প্রেমিক হৃদয় এই মধুরতম আবেশ ভাঙ্গার ভয়ে আশঙ্কিত থাকে l


হঠাৎ হঠাৎ তার দেখা মেলে l চলাচলের পথেই l লুকোচুরির ছলে হৃদয়কে নাড়া দিয়ে যায় l হৃদয়ের গভীরে প্রেমের অনুভব অনুরণন তোলে l মধুক্ষরা কণ্ঠে কোকিলের কুহুধ্বনি শোনার জন্য মন ব্যাকুল হয় l মনমোহিনী মায়াবিনী, রাগিণী সারা হৃদয় জুড়ে অধিষ্ঠান করে l
অবুঝ মন l তার কি করণীয় ? যাকে মনে ধরেছে, তার পিছু নেয় l আশায় ভর করে চড়াই উৎড়াই বাধা ডিঙ্গিয়ে মনমোহিনীকে অনুসরণ করে l


মনের কথা শুনতেই হয় l নইলে মন মন খারাপ করে l কবির সঙ্গে পাঠককুল অভিসারে যায় l কবিকে অভিনন্দন এরকম হৃদয় মন ব্যাকুল করা কবিতা উপহার দেবার জন্য l