৯৭.
ভিক্টোরিয়া যুগের বিখ্যাত আলোচক কবি ম্যাথু আর্নল্ড কবিতা বলতে বুঝেছিলেন "Criticism of Life" l জীবনের সমালোচনা l সমালোচনা কেন ?  জীবন পরিবর্তন করার জন্য l এ এক আন্দোলন l কবিদের আন্দোলন।
জীবনের components অনেক l কবিতা লেখার কালে জীবনের আলোচনা যদি চলে আসে, জীবনের এক বা একাধিক বিষয়কে কবি সমালোচকের দৃষ্টিতে  উপস্থাপন করেন l
কবি একজন ব্যক্তি l কবিতা আত্মপ্রকাশক (subjective) অভিব্যক্তি l কবিতার মাধ্যমে কবি নিজের ভাব ভাবনা আবেগ অনুভূতি প্রকাশ করেন l কাব্যের প্রেরণার সাথে সাথে তাঁর জীবনের অভিজ্ঞতাও লেখনীতে আসে l কিন্তু কবিতা সর্বদা কেবল আত্মপ্রকাশকারী থাকে না l কবি যখন মানুষের সঙ্গে, বৃহত্তর সমাজের সঙ্গে একাত্ম বোধ করেন, সেই বোধ থেকে যে কবিতার জন্ম হয় তা কবির একার মনের কথা থাকে না l তিনি হন প্রতিনিধি l মানুষের কথা, মানুষের ব্যথা কবির অনুভবে জারিত হয়ে কবিতায় প্রকাশ পায় l এরকম একটি কবিতা পেলাম কবি মৌটুসি মিত্র গুহ (কেতকী) রচিত "প্রশ্ন একটাই" কবিতায় l
জীবনের সমালোচনা আছে কবিতাটিতে l আছে আত্ম-সমালোচনার স্বর ও সুর l আমাদের পরিবেশ, লোকালয়  দরিদ্র মানুষে পূর্ণ l দুঃখের সঙ্গে তাঁদের নিত্য বাস l সেই একই লোকালয়ে সমৃদ্ধ কিছু মানুষজনও বাস করেন l সুখের অনুভব তাদের জোটে l সেই সুখের অনুভব নিয়ে, তার আভিজাত্য নিয়ে গরীব মানুষজনকে নিয়ে তাঁদের চলতে হয় l নানা কাজে কর্মে গরীব জনবসতিতে তাঁদের যেতে হয়, নিজের কাজ পূর্ণ করতে সেই মানুষদের কাজে লাগে l
এখানেই প্রশ্ন জেগেছে কবির মনে l দারিদ্র্যের এই সান্নিধ্য, দরিদ্র মানুষজনের এই ব্যথা বেদনার জীবন কি  হৃদয়কে আন্দোলিত করে না ? কবিহৃদয় কি মানবিকতার ডাক শুনতে পান না ? তিনি যে মানুষের দুঃখ বেদনাকে বিষয় করে কবিতা লেখেন, সেটা কি এই মানবিকতার তাড়নায় ? সাদা পাতায় কলমের আঁচড় কেটে হৃদয় ছুঁয়ে যাওয়া শব্দের বুনটে তিনি যে একের পর এক কবিতা রচনা করে ঝড় তোলেন, সেটা কি সেই মানবিক তাড়নায় ? তাহলে কবিতা রচনার কালে কবির তো দৃষ্টি আবছা হবার কথা l দু এক ফোঁটা চোখের জল কবিতা লেখার পাতায় পড়ার কথা l দুঃখী মানুষজনকে খুব কাছ থেকে দেখে তাঁদের দুঃখকষ্টের প্রত্যক্ষ অনুভব করার জন্য এবং নিজের প্রাচুর্যের একটা অংশ তাঁদের সঙ্গে ভাগ করে নেবার জন্য মন ব্যাকুল হবার কথা l


নাকি সবটাই অভিনয় ? সবটাই চাতুরী ? সুখের অনুভবে যাতে ভাটা না পড়ে তার জন্য সুখের চাদর গায়ে চড়িয়ে দুঃখের, দুঃখী মানুষজনের সাহচর্য, সুখের অলিগলিতে শৌখিন পথচলা ? কবির কবিতা রচনা, সে কি শুধুই আত্মতৃপ্তির জন্য ? মানবিক বোধের স্পর্শে আত্মার তৃপ্তি লাভ ? চাতুরী করে মহানুভবতা প্রকাশের প্রচেষ্টা ? সবটাই অভিনয় ?


এ প্রশ্ন শুধু আজকের কবির নয় l যুগে যুগে বারে বারে এ প্রশ্ন উঠেছে এবং উঠতেই থাকবে, যতদিন সমাজে অসমবন্টন থাকবে, ধনী দরিদ্রের ধারনা থাকবে, উভয়ের জীবনযাপনের মানে থাকবে বিস্তর ব্যবধান - এবং কবিতা থাকবে l

জীবন সমালোচনায় পূর্ণ এক বিদগ্ধ কবিতার জন্য কবিকে জানাই আন্তরিক অভিনন্দন l