আকাশ বলে,
আমি উদার কে পাবে আমার ঠাই-
গাছ বলে
আমি নম্র হতে দিধা নাই।
সাগর বলে,
আমি উচ্ছাস  জাগিয়ে রাখি বোম্ব রূখে
বাতাস বলে
আমি ঘুম ভাঙিয়ে  হাসি তমাল তরুর বুকে।
আলো বলে,
আমি হাটতে শিক্ষাই দুর বহু দুর
অন্ধকার বলে,
আমি আসি ক্লান্ত দেহের শান্ত কারি বিন বাশিসুর।
মেঘ বলে,
আমি ছুটে যাই পিপাসিত পৃথিবীর কান্নায় ছিন্ন ,
ঋতু বলে,
আমি নব বধু  তবে ফিরি নানা রূপে, বদলে ফেলার মগ্ন।
মাটি বলে,
আমি অবহেলিত  ক্ষুব্ধ আমায় নিয়া হিংসে জ্জরিত উত্তাপ্ত।
গগন বলে,
আমায় ছুইতে পারলে এতদিনে  আমায়  ওরা ভাগ করে নিত!
দিক বলে আমি ছোট্ট রূপে নয় দৃষ্টি সীমার অত প্রত,
উর্দ বলে আমি উঁচু আর উঁচু ধরনের ধরন সর্বোচ্চ যত।
জগত বলে আমি সাক্ষী মানুষরা জীবেরা কি রূপান্তর রূপ করে খেলছে কেমন খেলা?
গ্রহ বলে আমার আমি করি তবে হুকুম তারি স্রষ্টা
নত স্বীকার কাটিয়ে অর্ধ বেলা।
প্রকৃতি বলে আমি সাজি কতনা সেজে অথচ  বেসে
শিয়রে উঠে প্রতি কায়া প্রেম বাতায়ন লাগি তরে,
স্রষ্টা বলে আমি রেখেছি সব নিয়মে মাঝে যার যার  ওয়াদা হয় নি কেহ কুণ্ঠিত সকল নিজ নিজ পরে।