অনেক ঘুম চোখে লেগে আছে , জীবনের সংসারে বুঝি ঘুমানো আর হলোনা;
কখোন ঘুমাবো আর, অন্য এক সংসার যে টানে!
মনে হয় ল্যাম্পপোস্ট এর মতো রয়ে যাই, এই বাসাবাড়ির সামনে ;
আমাকে দেখো, আমি কেউ না কেউ
আমাকে একটু একটু করে মুছে ফেলো, হে স্রোতের ঢেউ ;
কবেকার কোনো এক স্টেশনে তোমাকে মনে করেছিলাম,
তুমি চলে গিয়েছিলে একা পথে চেনা কবিতার মতো;
তখনো ঘুম স্পর্শ করেছিলো অন্য এক ইন্দ্রিয়ে!
হায় তুমি কবেকার রুল ভেঙে চলে গিয়েছিলে;


জীবনের সংসার গুছানো হয়নাকো কখনো, রোজকার বেহিসাবে ঝগড়া শুধু গুছাই!
মনে হয় এমন করেই চলে যাবে আর কয়েক শত দিন ;
চেনা শ্রম, চেনা গণ্ডি, পেরতে পেরতে কখোন মুছে যাবো দেয়ালের রংয়ের মতোন,
তা টের পাবেনা আয়না ঝুলানো বেসিন!
এমনকি সেই আয়না দেখা সেও, হয়তো মনে করবেনা আর;
জীবনের সংসার বুঝি এমনি হয়, যেখানে কেউ কারে নিয়ে তৃপ্ত ছিলোনা!
তাই তোমাকে মনে পড়ে, অন্য কোথাও যে আছো;
সম্ভাব্য ভালো থাকার ভিড়ে, হয়তো আমাকে মনে করা লাগছেনা আর ;
কিন্তু আমি পারি কই, এই চেনা ঘুমে - ক্লান্তি ভরা নয়নে
তোমায় নিয়ে স্বপ্নে পাড়ি দিই কিছু প্রশান্তির আশ্রয়ে ;
তবু বুঝি ঘুমানো হয়না ঠিক মতো আর, তোমাকে নিয়ে পাড়ি দেওয়াও হয়না ঠিক মতো আর
বুঝি জীবন জীবনের সংসারেই রয়ে যায়, এই চেনা টানাপোড়নে, চেনা গালিতে,  চেনা অশান্তিতে!