কোমলপ্রাণ ছাত্র-ছাত্রী কোচিং সেন্টারে আসে
মিষ্টিভাষী গণিত স্যারকে অনেক ভালোবাসে ।


যাকে যখন বাছাই করে নামে টিক দেয়,
শিশুপার্কে যাবে বলে গভীর বনে নেয় ।
হারানো সংবাদ প্রচারিত সকল মিডিয়াতে,
সবাই জানে শিশুটি নিখোঁজ হয়েছে পথে ।


হাতে পায়ে রশি আর মুখে গামছা বেঁধে,
অস্ত্রোপচার করে তার কিডনী নেয় কেটে ।
সুস্থ সবল বাচ্চাদের কিডনীতে তার নেশা-
কিডনী চুরি, কিডনী বিক্রি এটাই তার পেশা ।
প্রতি মাসে কিডনী দেবার প্রতিশ্রুতি থাকে,
খ্যাতিমান ডাক্তারগন হাতে রাখেন যাকে ।


সুশিক্ষিত, সুদর্শন, উঁচু বংশের ছেলে
এতটা নিচে নামে ইয়াবা আসক্ত হলে !