সাম্প্রতিক মন্তব্যসমূহ

সুকান্ত ভট্টাচার্য

sukanta

পিতা-নিবারন ভট্টাচার্য, মা-সুনীতি দেবী। ১৯২৬ সালের ১৫ আগস্ট মাতামহের ৪৩, মহিম হালদার স্ট্রীটের বাড়ীতে তার জন্ম।। তাঁর পৈতৃক নিবাস ছিল ফরিদপুর জেলার(বর্তমান গোপালগঞ্জ জেলার কোটালীপাড়া থানার উনশিয়া গ্রামে)। ১৯৪৫ সালে প্রবেশিকা পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে অকৃতকার্য হন। এ সময় ছাত্র আন্দোলন ও বামপন্থী রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডে যুক্ত হওয়ায় তাঁর আনুষ্ঠানিক শিক্ষার সমাপ্তি ঘটে। সুকান্তের বাল্যবন্ধু ছিলেন কবি অরুনাচল বসু। সুকান্ত সমগ্রতে লেখা সুকান্তের চিঠিগুলির বেশিরভাগই অরুনাচল বসুকে লেখা। অরুনাচল বসুর মাতা কবি সরলা বসু সুকান্তকে পুত্রস্নেহে দেখতেন। সুকান্তের ছেলেবেলায় মাতৃহারা হলেও সরলা বসু তাকে সেই অভাব কিছুটা পুরন করে দিতেন। কবির জীবনের বেশিরভাগ সময় কেটেছিল কলকাতার বেলেঘাটার ৩৪ হরমোহন ঘোষ লেনের বাড়ীতে। সেই বাড়িটি এখনো অক্ষত আছে। পাশের বাড়ীটিতে এখনো বসবাস করেন সুকান্তের একমাত্র জীবিত ভাই বিভাস ভট্টাচার্য। পশ্চিমবঙ্গের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য সুকান্তের নিজের ভাতুষ্পুত্র। (উৎসঃ উইকিপিডিয়া)

Sukanta Bhattacharya (15 August 1926 – 13 May 1947) was a Bengali poet and playwright. Along with Rabindranath Tagore and Kazi Nazrul Islam, he was one of the key figures of modern Bengali poetry, despite the fact that most of his works had been in publication posthumously. During his life, his poems were not widely circulated, but after his death his reputation grew to the extent that he became one of the most popular Bengali poet of the 20th century. He has had a significant influence on poet Subhas Mukhopadhyay and composer Salil Chowdhury who set some of his popular poems to music. (Source: Wikipedia)

সুকান্ত ভট্টাচার্য-এর কবিতা  RSS

শিরোনাম মন্তব্য
১৯৪১ সাল
১লা মে-র কবিতা
অদ্বৈধ
অনন্যোপায়
অনুভবন
অবৈধ
অভিবাদন
অলক্ষ্যে
অসহ্য দিন
আগামী
আগ্নেয়গিরি
আজব লড়াই
আঠারো বছর বয়স
আমরা এসেছি
ইউরোপের উদ্দেশে
উদ্বীক্ষণ
এই নবান্নে
একটি মোরগের কাহিনী ৩২
একুশে নভেম্বরঃ ১৯৪৬
ঐতিহাসিক
কনভয়
কবিতার খসড়া
কবে
কলম ১৪
কাশ্মীর
কৃষকের গান
খবর
চট্টগ্রামঃ ১৯৪৩
চারাগাছ
চিরদিনের
চিল
ছাড়পত্র
ছুরি
জনতার মুখে ফোটে বিদ্যুৎবাণী
জনরব
ঠিকানা
ডাক
দিকপ্রান্তে
দিনবদলের পালা
দুরাশার মৃত্যু
দেওয়ালী
দেশলাই কাঠি
নিবৃত্তির পূর্বে
নিভৃত
পঁচিশে বৈশাখের উদ্দেশে
পরিখা
পরিশিষ্ট
প্রস্তুত
প্রার্থী
প্রিয়তমাসু
পাতা: