তোমার মুখের ডাকাতিয়া কলহাস্য শুনে,
ঝর্ণার স্রোতধারা অবিরাম ঝরে।
সমুদ্রের গভীরতা মাটি স্পর্শ করে।


তোমার মুখের ডাকাতিয়া কলহাস্য শুনে,
পুকুর জলে কলমিলতা-তরঙ্গ খেলায় মেতে ওঠে।
মরুর বুক ছিড়ে অঙ্কুরিত বীজের ঘোর বিস্ময় কাটে।


তোমার মুখের ডাকাতিয়া কলহাস্য শুনে,
যোজন যোজন দূরত্ব দুয়ারে এসে দাঁড়ায়।
পাহাড়ের বনফুল নিসঙ্গতায় প্রাণ ফিরে পায়।


তোমার মুখের ডাকাতিয়া কলহাস্য শুনে,
আকাশের তুলতুলে নীলিমায় বিন্দু বিন্দু রস জমে।
বিরহকাতর সমীরণ আষাঢ়-শ্রাবণে মজে সহচর প্রেমে।


তোমার মুখের ডাকাতিয়া কলহাস্য শুনে,
বছরভর ফুটার তরে শিরীষ-শিমুল করে কথোপকথন।
কোকিল রাতবিরেতে কাটাছেঁড়ায় শোধন করে কুজন।


তোমার মুখের ডাকাতিয়া কলহাস্য শুনে,
রৌদ্রদগ্ধ পথের বুকে আমি পায়চারী করি নির্বিঘ্নে।