(২১ অগাষ্ট গ্রেনেড হামলার পরে লেখা, যা অপ্রকাশিত থেকে যায়)


নাহ; আমি বিশ্বাস করিনা!
আমি বিশ্বাস করি না।
বাতাসের মাঝে গ্রেনেড ফাঁটবে কেন ?
গ্রেনেড ফাঁটবে মানুষের মনে
ফাঁটবে চেপে থাকা ক্ষোভে
আর ;
জমে ওঠা বারুদের বুকে।
জ্বলে জ্বলে খার হবে
কুকুর আর শুয়োরের হাড়।
ক্রমশ’ই শুষে নেবে পিচঢালা পথ।
দ্যাখ!
বিদ্রোহে জ্বলছে কয়েকটি স্যান্ডেল
কয়েকটি হাতব্যাগ
কয়েকটি চুড়ি
আর খুলে পড়া ঘড়ি।
যেন আগুন হতে চাইছে জমাট রক্ত।
তোমরা দ্যাখ;
ঐ আমার বোনের লাশ
ঐ আমার মায়ের লাশ।
ঐ স্থির দৃষ্টি যেন বলছে
খোকা; তোর পেছনেও মৃত্যু।
আর একবার জেগে ওঠ খোকা
আর একবার!
আমার চোখে সুনসান নিরবতা।
চিক্ চিক্ করে জল।
চিৎকার করে বলি;
আর একবার আমায় দাও
যুদ্ধ রাইফেল।
আর একবার দাও !
আর একবার দাও !


বাতাসের গর্ভে বিলীন হয় ধূসর সংলাপ।
থেকে যায়;
চিরঞ্জীব যুদ্ধ অধ্যেষণ।
..........................