একাত্তরের পঁচিশে মার্চ ভীষণ আর্তকিতে
বাঙালীদের কন্ঠ চিরস্তব্ধ করে দিতে
গভীর রাতে ঘুমেরঘোরে মানুষখেকোর দল
বাঙালীদের হত্যা করে, রক্তে নামায় ঢল!


সকাল হতেই এমন খবর পৌছে সারাদেশে-
দিকে দিকে সব বাঙালী জাগলো বীরের বেশে!
ছেলে-মেয়ে জোয়ান-বুড়ো সকলে হৈ হৈ-
রক্তের শোধ রক্তে নিবো, কই শালারা কই?


দেশটা ভাগের আগে থেকেই দুঃখ অনেক জমা-
এবার শালা পশ্চিমাদের করবোনা-কো ক্ষমা।
ছাব্বিশে মার্চ মুজিব দিলেন-স্বাধীনতার ডাক!
এদেশ আমার এদেশ থেকে স্বৈরী নিপাত যাক!


ওদের হাতে অস্ত্র-বুলেট, বাঙালীদের লাঠি-
লাঠির জোরেই মুক্ত করে ছাড়বো দেশের মাটি!
রক্তে যেনো আগুন ঝরে, অসীম সাহস বুকে-
কৌশলে কৌশলে তারা পাক-সেনাদের রোখে!


ডিসেম্বরের ষোল তারিখ সেদিন বিষুদবার,
পাক-সেনারা স্বদলবলে মেনে নিলো হার!
ত্রিশ লক্ষ ছেলে মেয়ের রক্তে অবশেষ-
মানচিত্রে উঠলো হেসে একটি বাংলাদেশ!