আমি মাটির দেয়ালে লেখা স্বাধীনতা দেখেছি,-
সদ্যোজাত শিশুর রক্তে লেখা স্বাধীনতা;
আমি দেখেছি AK- 47 এর গুলিতে পথচারীর দেহ থেকে -
টপটপ করে ঝরে যেতে, রক্তঝরা স্বাধীনতা!


আমি দেখেছি,-প্রতিটি কুমারীর চোখে বিভীষিকায়,
বিধবার কাতর হাহাকারে;
সীমহীন ভয় ও বেদনায় বিমূর্ত স্বাধীনতা!


আমি ক্ষয়ষ্ণু দেহ থেকে স্বাধীনতার সঙ্গীত শুনেছি,-
শিরশ্ছেদ করা আত্মাদের কন্ঠে গাওয়া স্বাধীনতার গান।


আমি দেখেছি বেসামরিক বিক্ষোভ ও রাজনৈতিক প্রতিবাদে
গ্রেনেডের-বিস্ফোরণে বিদগ্ধ স্বাধীনতাকে!


আমি দেখেছি, গণতন্ত্রের সিংহাসন থেকে একনায়কদের
অপসারণ করতে না-পারা;-ব্যর্থ স্বাধীনতাকে!


এসব রক্তপাত দেখে আমি বলেছিলাম,-
"হে স্বাধীনতা,-এবার তুমি, তোমার ঐশর্যময় শক্তি দেখাও! "


অত:পর ডুবে যাওয়া বিভ্রান্ত ছায়ার মতো স্বাধীনতা
আমার দিকে ঘুরে বললো,- "আমার শক্তির বীজ বপন করো তোমাদের উর্বর সাহসী হৃদয়ে"।