রাধে থমকে গেলি কেন
##############


রাঙা পথ,তোরই তো পরিচিত গ্রাম,
জানা অজানা,উলু খাগড়ায়, ভরা অঘ্রানের ঘ্রান ।।
চেনা জানা ,মেঠো ঘর,স্মৃতির আঙিনায়,
রবি আর শশীকলা মিলেমিশে একসার।
তবু কেন এত অজ্ঞাত  ভয়?
পিছে পিছে অনুচর হয়ে রয়।।


তুই যে রূপে গুনে ,অপরুপা অনন্যা,
তবু মনে হয় অসহায় যেন,
ও রাধে তুই থমকে গেলি কেন?


স্বপ্নালু চোখে শত ক্রোশ দূরে ,
ঘরবাড়ী ছেড়ে, মেঠোপথ ভুলে,
পাকা পথে এলি শহরে।।
বহুতল বাড়ি,ইমারত সারি সারি,
দিনরাত শেষে,ইমারতে অবাক হয়ে বসে,
দু-নয়ন বুনে স্বপ্ন রং ,বে-রঙের ,রকমারি ।।


হঠাৎ দরজার ঘন্টা বাজে,
অচকিতে জাগে,
পিজা হাতে এক মহময় যুবক,
অদ্ভুত হাসিতে ভরা ওষ্ঠদ্বয় ,
মেম আমি পিজা ডেলিভারী বয়,
নাম স্বপ্নময়।।


সবকিছু ভুলে ,
বুকে অনুরাগের তান তুলে,
অন্তরে,অন্তরে,ভালোলাগা রাশিরাশি,
এলো দলে দলে ।।


হঠাৎ পেয়েছে সাড়া,
বল্গার মত বন্ধনহীন হারা,
দুচোখ যেন নেশায় বুঁদ,
পৃথিবীর সব সুখ  দিলো আঁচলে ধরা।।


অন্তরে অন্তরে কতমিল,
সপ্তাহে একদিন,দিনান্তে দেখা হয়।
রাধে আর স্বপ্নময় ।।
বছর কয়েক ঘুরে,বন্ধন ছড়িয়েছে গভীরে,
প্রতিদিন,প্রতিক্ষণে কথা হয় ,
অবসরে ও দুরাভাসে।।


পিজা হাতে একদিন,বহুতল একা,
আগুনের লেলিহান শিখা করেছে গ্রাস,
ছোট্ট এক বালিকা।


ভাবলেশ ভাবনা,
কে কোথায় সময় আর চাই না।
সাহসে দিয়ে ভর,পা রাখলো আগুনের ভিতর,
ক্ষণকাল পরে বালিকা এলো ফিরে,
ঝলসে গেল স্বপ্নময় ।।


সপ্তাহ খানেক বাদে খবর আজ এলো,
জীবন দিয়ে স্বপ্নময় জীবন দিলো ।
জনলো না লোকে ,
জানা আজানার কত স্বপ্ন কে হারালো ।।


কেটেছে কত গ্রীষ্মের দাবদাহ,
চৈত্র, বৈশাখে,
রাধে  ""আনন্দধারা"" আগলে রাখে নিঃশ্বাসে প্রশ্বাসে ।।


হাজারো অনাথের দল,
বর্ষে বর্ষে  তুলে কলতান,কোলাহল,
আনন্দধারা হয়েছে পুষ্পে,পত্রে, বিকশিত ।।
শিশুরা আঁখি যুগল তুলে,
প্রাতঃ পাঠের সাথে বলে দুলে দুলে,
"আনন্দধারা" আজ রামধনু রঙে রঞ্জিত ।।
সবকিছু আরপার,স্বপ্নগুলো ছারখার,
এই অনাথ আশ্রমে পার হয়ে গেল দশ বছর ।।


দুচোখ স্বপ্নময়,
সনাতনী বেশে,সাদা সাজে সেজে,
রাধে আজও পথ চেয়ে রয় ।।


অন্ধকারের হাহাকার,চোখ মুদলে বারবার,
দু:স্বপ্ন গুলো, ধেয়ে আসে, ধেয়ে যায়।।
ভাঙা গড়ার স্বপ্ন গুলো বুকে বাজে যেন,
ও রাধে তুই থমকে গেলি কেন?


বয়স হয়েছে ষাট, চুলেতে ধরেছে পাক,
বয়ে গেছে অনেক চাপান উতর,
দুর্বিসহ, দু:সময় ।।


না বলা ভাষা, স্মৃতিতে আসে ঘুরে ফিরে,
অন্তরে অন্তরে খায় কুরে কুরে,
তবু খুশির ছবি আঁকে মুখে,
সবকিছু বয়ে চলে ঘুনধরা বুকে ।।
শয্যাশায়ী ঘরে মাস কয়েক পরে ,
অকালে পাড়ি দিল নিরুদ্দেশে ।।


ফেলে গেল ধুলোজমা স্মৃতি,ছায়া,
না পাওয়ার পাণ্ডুলিপি ,আর অপার মায়া ।।
সব কিছু সময়ের আঙিনায়,
ক্যানভাসে আঁকা যেন,
ও রাধে তুই থমকে গেলি কেন??