সবুজ বরণ পাখিরা উড়ে যায়
স্বর্নালী মায়াবী স্বপ্নেরা তাদের চোখে,তাদের বুকে।
মোহন বাঁশরির সুরেলা শোভিত কণ্ঠ তাদের হৃদয়ে
তারা উড়ে যাচ্ছে কোন এক বর্নিল দ্বিপে।
তারা স্বপ্ন দেখে
বর্নালী দ্বিপের স্বপ্ন
মায়াবী স্বপ্ন।
কালের  নির্দয় দমকা বাতাসে উড়ে যায় তাদের পালকগুলো।
একটা একটা করে খসে পরে যায় ধুসর, নিলাভ মাটিতে।
কালাগ্নি হাওয়ায়  তাদের দেহের আপেক্ষিক শক্তি কমে যায়
দেহের ভেলার ওজন বাড়তে থাকে শুধুই।
তারপর সেই পালকগুলো
খসে পড়তে পড়তে পড়তে একদিন।
সবুজ বরণ পাখিদের মায়াবী পালক হারিয়ে যায় সব।
বিমর্ষ চোখে অসহায় পাখিরা
এদিকে সেদিকে তাকায় কেবল
চোখের কোনায় দুই টুকরো জলের কণা
চিকচিক করতে থাকে
তাদের  স্বর্নালী পাখার পালকগুলো আর নেই।
এই সব পালকবিহীণ নিঃসঙ্গ পাখিরা
যারা মাটিতে পরে আছে ডানাভাঙ্গা নির্জীব টিয়া পাখির মতো
উন্মুক্ত খাঁচায়
তারা কি আর কোনদিন উড়তে পারবে না
তারা কি আর কোনদিন ভাসতে পারবে না
ঐ সীমাহীণ আকাশে।
৪৬/৩৮