গীতি কবিতা


কোথায় যে বয়ে চলো তীরভাঙা নদী
জল নাই কানাকড়ি তবু জলধি।
কোথা হতে এলে নদী ভুলে গেছো আজি
কোথায় মিলবে শেষে স্বরূপে প্রকাশি।
জন্ম থেকে  ছুটে চলা আজো অবধি
বিরতিবিহীণ স্রোতে চলো নিরবধি।
জীবন চলার পথে একি কলতান!
চোখের জলের স্রোতে জনমের গান।
জলভরা দুনয়নে গেয়ে যাই গীতি
কখন যে থেমে যায় ভব রীতি নীতি।
পর্বত আতুর হতে এলে যাযাবর
মরনে সঙ্গি তোর অকুল সাগর।
এই স্রোত, এই ঢেউ থেমে যায় যদি
তবে কি শুকনো চরে হারাবে ও নদী।
নিয়তি অমোঘ ঝড়, প্রখর প্লাবণ
যদি এসে তীর ভাঙে কি হবে তখন!



গীতি কবিতা
১/৩৪