আসছে বন্যা


আব্দুল মান্নান মল্লিক


বৃষ্টি পড়ে ঝরঝরিয়ে মাঠ ঘাট সব বোঝায়,
থামবে কবে ভাবছে সবে ঠিকঠিকানা নাই।
আলুর কেজি চল্লিশ টাকা ষাট টাকাতে পিঁয়াজ,
মানব রূপি পিশাচ যারা ব্যবসা করছে আজ।
বন্যার সাথে ঘূর্ণিঝড় সান্ধ্য বার্তায় প্রকাশ,
দৌড়াদৌড়ি ছুটোছুটি গাঁয়ের মানুষ হতাশ।
ঘরবাড়ি সব ভাঙবে ঝড়ে কি'যে করি উপায়,
বউ বাচ্চা সঙ্গে নিয়ে কোন দেশেতে পালায়।
হুঁকোর সাথে বগলে কাস্তে মতি দাদুর দৌড়,
ছাড়তে পারে সবই  দাদু মায়া ছাড়েনা হুঁকোর।
বলছে কেহ ছুটে আসি বাঁধ ভাঙবে রাতে,
গঙ্গাজলে ডুববে গ্রাম নাইকো সময় হাতে।
পুঁটলি হাতে কম্বল মাথে তুলছে কেহ ছাদে,
গাঁয়ের মানুষ ছুটোছুটি বাচ্চারা সব কাঁদে।
গরু ছাগল ডাকাই কেহ পালায় পল্লী ছাড়ি,
বোঝা মাথায় জলে কেহ করছে তাড়াতাড়ি।
বৃক্ষ শাখায় বাঁশের বেদী নির্মাণ করে ছেদি,
চালের বস্তা হাঁড়িকুড়ি তুলছে আরো ঘটিবাটি।
মহ্যম পুরের পল্কা বাঁধ জলের সমান সমান,
কোথাও বাঁধে ছলাৎছলাৎ নাইকো পরিত্রান।
রহিম মোড়ল সাহস দিয়ে, বলে সবার সাথে,
গাঁইতি কোদাল ধর হাতে বাঁধবো বাঁধ রাতে।