মেঘ-বৃষ্টির সাথে  
অজয় কৃষ্ণ গোমস্তা


আমার একবার কাঁদতে ইচ্ছে করছিল
আমি তখন একলা ঘরে একা।
জানালার ফাঁক দিয়ে মেঘ
আমাকে বললে, মন খারাপ কেন?
বললাম, একলা ঘরে একলা আছি।  
মেঘ বললো বাইরে এসো,
আমার কান্না দেখবে।
আমার হাসি পেল,
মেঘ বললো বাইরে এসো-
আমি তোমায় ভিজিয়ে দেবো
তোমার সব কষ্ট দূর হবে।
মেঘের সাথে আমার এই ছিলো কথোপকথন।
আমি বাইরে যেতেই
ঝুপ করে এক পশলা বৃষ্টি
আমাকে ভিজিয়ে দিলো।
আর বৃষ্টি কি বললো জানো!
কেমন ছুয়ে দিলাম দেখতো!
শরীর মন সব ধুয়ে দিলাম কিন্তু।
এখনও কি তোমার কষ্ট হচ্ছে-
কষ্টের ভাগ যে আমিই নিলাম
তোমার কষ্ট তোমার কান্না
আমি দেখেছি বলেই আমি কেঁদেছি।
তুমি আনন্দে ভেসেছো
আমি তোমাকে আমার সাথে জড়িয়ে নিয়েছি।
কি! তোমার এখন ভালো লাগছে না?
আমার আর ভালো মন্দের কি আছে
সাগর থেকে উড়ি আকাশে
আবার বাতাসে ভেসে ভেসে
তোমাদের কাছে আসি,
তোমাদের কষ্ট দেখলে আমার দুঃখ হয়
রোদে পুড়ে তোমরা যখন খাক হয়ে যাও
অসহ্য গরমে ছটফট করতে থাকো
তখন আমি আর তোমাদের থেকে
দূরে থাকতে পারি না।
তোমাদের শান্তি দিতে চলে আসি,
তোমরা প্রশান্তি পেলেই  
আবার সাগরে চলে যাই।
মেঘ বৃষ্টির সাথে আমার কথোপকথন এমনই চলছি সেদিন।