ভেবেছিলাম চাউলের চোখ রাঙানি হয়তো শেষ
বোরোর ভরা মৌসুম, গর্জাবেনা আর,
কিন্তু আটার বেয়াদবী ক্রেতা-দোকানী ছড়াচ্ছে বিদ্বেষ,
জনে জনে মুখে মুখে তেলের গোষ্ঠী উদ্ধার
নিয়তই ছড়িয়ে যাচ্ছে ক্লেশ!


পেঁয়াজের অত্যাচারটা আপাতত গায়ে সয়
রসুন-আদাও কিছুটা ঘাড় গোঁজা,
আলু-পটলের বাজারে গলা কাটার ভয়
মাছ দোকানের রাস্তায় হাঁটা ধরি সোজা,
নিত্যের কান-মলায় জীবন হচ্ছে তয়।


দুধ, ডিম প্রতি সপ্তাহেই দেখায় সার্কাস
বাজারে ঢুকতেই ভেতরে জাগে ডর,
বেকারী পণ্যতো বন্ধ করে দেয় নিঃশ্বাস
মাংসের দোকান যেনো ঐতিহাসিক জাদুঘর,
কোথাও নেই খানিক স্বস্থির আশ্বাস।


মৌসুমী ফলের চিন্তাটাই যেন অপরাধ
ওদিকটায় কান-কাটা চোরের মতো হাঁটি!
বিদ্যুৎ-গ্যাসের বাড়াবাড়ি ঘটায় প্রমাদ
তাহলে কি সামনে খেতে হবে মাটি?
দিনে দিনে জীবনের স্বস্তিটাই বরবাদ।