তপ্ত দিনে দগ্ধ প্রাণে কি যে দহন মনই জানে,
হাত বাড়িয়ে চাইছি ওরে -
মেঘের কোলে বৃষ্টি তোরে,
আয়রে নেমে ঝর্ণা হয়ে এই তপ্ত বুকে তুই ।


যা ছুঁয়ে তুই মনকে আমার
শিতল হাওয়ায় তোর বরিষণ ,
দে নারে তুই একটু দোলা -
তোর ছোঁয়াতে এই মনমুকুরে তোলনা শিহরন ।


মুক্তো হয়ে ঝর নারে তুই
নিঃস্ব আমায় দে করে তুই ধনি,
বড় ময়লা জমা এ'মন দেহ -
তুই দে ভিজিয়ে আমায় ধুয়ে ।


জুড়িয়ে দে এ' দহন জ্বালা
আমার তপ্ত বুকে মোহিনী তোর শিতল ছোঁয়া দিয়ে,
ঝর নারে তুই ফোঁটায় ফোঁটায়
আমার শুকনো ঠোঁটের 'পর ।


তৃষ্ণা মেটাই তোর পরশের মধুরসে ,
আঁখির ক্ষুধা মেটাই তোর ঝুম বরিষন দেখে ।
ধরব তোকে আলতো ছোঁয়ায়
যা বয়ে তুই জড়িয়ে আমার তপ্ত শরীর বেয়ে ।


***************************
অমিতাভ (২১।৬।২০২১)