দখিনা বাতাস  বয় দোলা দেয় প্রাণে,
ফুলে ফুলে বনতল অপরূপ সাজ !
প্রান্তরেখায় রবি  গোঠে ফেরে  ধেনু
দুর হতে ভেসে আসে রাখালের বেনু ।
ক্লান্ত চাষিরা ফেরে কাঁধে লাঙলের ঈশ্
নির্জন চাষের ক্ষেত পড়ে রয় পিছে ।
নীল আকাশ ,লাল পথ ,আঁকা বাঁকা সরু
ফুলে ফলে পল্লবিত অনুপম রূপ ।
সবুজ বনানী ঘেরা অপরূপ গ্রাম
আনমনে পথ চলি নেশাতুর মন ।


পথমাঝে ষোড়শী এক আয়ত নয়না
দুর্বার আকর্ষণী , বিচিত্র সম্ভারে ।
প্রস্ফুটিত যৌবনের উদ্ধত লাবন্য
অবাধ্য দেহবল্লরি মানেনা বাঁধন ।
চঞ্চলা হরিণী যেন অধরা মাধুরী
অপরুপা , মোহময়ী দেহসম্ভারে ।
তন্বী , শ্যামা ,পয়োধরা ,শিখরিদশনা
সুগভীর নাভীমুল , অনন্তযৌবনা ।
প্রকৃতির ভাস্কর্য তার অকৃপণ দানে
মুগ্ধ , অবশ হীয়া রূপসুধা পানে ।
চকিত দৃষ্টি হানি হারায় বনপথে
শ্যামাঙ্গি ওই মুখশশী কল্পনা বিলাস ।


পথিক পরান বলে চলি পিছে পিছে
সন্ধ্যা নামে ,দ্বীপ জ্বলে কুলায় কুলায় ।
আঁধারে মাদল বাজে –
ষোড়শী হারায় ।
================
অমিতাভ (২১।০২।২০১৩) সকাল ৭-০০
( লেকের ধারে )