রাতকুয়াশায়
_______  
রাতের গভীরে আজ চোখের পাতারা করেছে বিদ্রোহ
বন্ধ করবেনা ওরা চোখ, দেবেনা ঘুমোতে আমাকে ওরা আর।
জানি তুমি বিদেহী আজ, এও জানি হয়েছ অদৃশ্য তুমি অধরা,
তবুওতো রয়েছ কোথাও নির্ঘাত, অবিনাশী এই আত্মাকে নিয়ে!
তাই বলছি তোমায় -
জানো আজ ভালবাসা, মিলনের দিন?
পুর্ণশশী দেখ আকাশে বিছিয়ে দিয়েছে চাদর জ্যোৎস্নার,
তারাদের সাজিয়েছে শামীয়ানাতে - আলোর জোনাকী কোরে রাতের আঙিনায়।
তুমি কি দেখছোনা তোমার অন্তরের আঁখি দুটি মেলে এ'রাতের এই মধু জোছনায়?
সুখের তরণী বয়ে আমরা দুজন এমন দিনে ছিলাম কেমন মগ্নমুখর,
তাকে যে ভোলা বড় দায়।
অবয়বে নেই তুমি জানি তবু কেন এই অন্তহীন আহ্বান?
দেখ - আজও কেমন ফুলেরা মেলে আছে পাপড়ি ওদের
সুগন্ধ ছড়িয়ে চারিদিকে - শিশির কণা মেখে সারা গায়!


এসোনা – এসো প্রিয় বাড়িয়ে রেখেছি দুই বাহু আমার
মুঠো ভর্ত্তি করে অম্লান ভালবাসা নিয়ে, অঞ্জলি দেব বলে রয়েছি দাঁড়িয়ে।
জানি আজ তুমিও রয়েছ অধির হয়ে-
বুকের ভিতরে লালিত অম্লান অনির্বান ভালবাসা নিয়ে।
ভয় নেই কেউ দেখবেনা তোমায়,
এখন যে নীদ্রায় মগ্ন পৃথিবী এই নিশিযামে।
এসো পুন্য হই শুদ্ধ শিশির কণায় ভিজে, পাপড়ির নরম ছোঁয়ায়।
এসো আজ ভালবাসাকে করি বন্দনা,
একবার নিভৃতে এই নিরালায়, আজিকার রাত কুয়াশায়!
---------------------------------------------
অমিতাভ (১৪.২.২০১৮)বাড়ি, রাত ১১-৪৫
( in Velentine's night)