লজ্জাবতী তুমি লজ্জাতেই থাকো না কেন?
কেন বারবার আমার মনে উঁকি দিয়ে ওঠ?
কেন লজ্জা ভেঙ্গে আমার পাশে বসো?
কেন আমার হাতটি এত শক্ত করে ধরো?


এই আমি লজ্জাবতী তোমার হতে চাই,
তাইতো এত চোখ আড়াল করে আমি,
তোমার পাশে বসে তোমার হাতটি ধরি।


লজ্জাবতী তুমি কি মোটেই ভয় পাও না?
আমাদের সমাজ কি তুমি ভুলে গেছ?


আরে কে বলেছে তোমায়, যে আমি ভুলে গেছি?
আমিতো তোমাকেই আমার সমাজ ভাবছি।
তোমায় নিয়ে ঘর বাধার স্বপ্ন দেখি আমি।
প্রতি বেলায় সমাজ বলে, তোমাকেই ডাকি।


আমিই যদি সমাজ হই আমায় কেন লজ্জা পাও?
নাকি আমায় আশা দিয়ে হারিয়ে যেতে চাও?


আরে বোকা লজ্জাতেইতো নারীর পরিচয়।
আমার সমাজ হয়ে ঘরে তুলবে যখন,
লজ্জা চেপে তোমার কাছে আসবো তখন।
আজও তোমার হাত যে ধরি আমি,
লজ্জা আমায় ডেকে বলে ‘ধৈর্য ধর’।