আবার যদি সোনার দিনে
বসন্ত বিলাসে স্বপ্নে ভেসে
দারুচিনি দ্বীপে যাই –
তুই কি মোর সঙ্গে যাবি?


ফ্রেমে যদি বেঁধে রাখি
মায়া হাসির মুখচ্ছবি  
পাঁজর বেঁড়ে বুকের মাঝে
আগলে রাখি যতন করে
নিরব ছোঁয়ার স্মৃতি খানি
তুই কি আমার, সাথে র'বি?


ঊর্মি মালায় দুলে ছিলে
সমুদ্র স্নানে ভেসেছিলে
ঢেউয়ে রা সব থমকে যেত
লতানো তনু র খাঁজে খাঁজে।
আবারো খুব ইচ্ছে করে
ফের সমুদ্র ঘুরে আসি
তোরে আমার সখি করে
তুই কি যাবি, আমার সাথে?


সুখ দু:খের অনুভূতে
এক জনমে সবই গেল
সাঁঝের বেলা কল-তলাতে
আমার তুই, আসবি আবার?


তুই তো এখন অন্য জীবন
পোষ মানানো, বোল শেখানো
আবরণে ঢাকা মূর্ত মূর্তি।


যে যায়, সে যায়
এক জীবনে সব হারায়
দোলন-চাপায় ছন্দ-পদ্য
দুরু দুরু বুকের কাঁপন
ছোট্ট ছোট্ট আশাগুলো
হারায় জীবন ধূলিসাৎ!


ফিরে কি তুই আসবি আবার ?
এই জন্মে নয়, আরেক জন্মে
সেই দিনও এমনি উঠবে রোদ
একই রকম আঁধার আলো
মানুষগুলো মন্দ-ভালো।
যদি বলিস আসবি ফের
পরের জন্মে সখি হবি-
কদম-গুচ্ছ হাতে নিয়ে
বাদল দিনে অরণ্য পাড়ে
তোর প্রতীক্ষায় প্রহর গুনবো
এই জন্মের মূর্খ কবি।।


                  [কবির ছদ্মনাম “ওনিনেচি” রচনাকাল- ২২/৫/২০১৫, কুলাউড়া]