ফাগুন গোধুলি বেলায়, সোনাঝুরির নোয়ানো শাখার ডাকে
চলে ছিলাম আপন মনে, উদাসী স্বরলিপির গুঞ্জন সাথে  
পথ পাশে অনাদৃত মঞ্জরীর সুরভিত ইশারায়, মন বসন্ত ময়  
চিত্রিত আচ্ছাদনে ধূসর স্মৃতির সরণি, ইহ জীবনের সঞ্চয়।


যত পথ চলি, নিত্য অজানারে জানি, সঞ্চয়ের পাত্র উঠে ভরি
তবু মনে হয়, বিদ্রুপে কেহ হাসে অনিবার, প্রেমপাত্র হরি
বিপুলা এ রঙ্গশালায়,  রঙ্গ শেষে, জানি ফিরে যেতে হবে ঘরে
কেহ বলিবেনা, থাক হে পথিক,  আরো দুটি দিন, প্রেম ভরে।


সহসা পিছু ডাকে থামি, কে যেন বলিল, দেখতো চিনতে পারকি  
পিছে ঘুরি, দেখি নব পল্লবে অপরূপা, এক তনু, হাতে ফুল সাজি      
বলি, মনে করতে পারিনে, হাসিয়া বলিল সে, আমি প্রেম, ভুলে গেলে !
দেখ, এনেছি সেই ফুল সাজি তোমা ত্বরে, আজি নব বসন্তের পলে ।  


বলি, মনে পড়ছে বটে, সেতো অনেক কালের কথা, চার দশক হবে
কেমনে রেখেছ আজো সতেজ করি, আমি তো জীর্ন হয়েছি কবে
দেখিলাম সাজি ভরা ফুল নানা রঙে, আজো সতেজ, যেমনি ছিল আগে
স্পষ্ট পড়িল মনে, নব বসন্তে ফুটেছিল এরা, দিবস ও রজনীর ভাগে ভাগে।    


সোনারপুর
১৫.০৩.২০১৮