আজকাল আর লেখায় মনোনিবেশ করতে পারছি না। করোনা সচেতনতায় পুরানো একটা কবিতা পোস্ট করছি।      


[ক্ষুদে শয়তান করোনা]


দামামা বেজেছে মহাদেশ জুড়ে
ঘুম গেছে আজ ছুটে,
ক্ষুদে শয়তান দাপিয়ে বেড়ায়
প্রতিরোধ বেড়া টুটে।
মহামারি আজ কড়া নাড়ে দোরে
দেশবাসী সাবধান,
সমুখে বিপদ ভয়ানক অতি
চাই ত্বরা সমাধান।
ডাক্তার আর সরকার বলে
ছোঁয়া থেকে থাকো দূরে,
বিনা প্রয়োজনে এদিক ওদিক
বেড়িয়ো না আর ঘুরে।
প্রয়োজনে যদি বেরোতেই হয়
নাক মুখ রাখো ঢেকে,
দূরতা বজায় রেখে চলো সদা
মুখেতে হাত না ঠেকে।
বাড়িতে ফিরেই কেচে ফেল সব
বাইরের যত সাজ,
সাবান দিয়েই হাত মুখ ধোও
সদাই থাকো সজাগ।
আমরাই পারি বিপদ এড়াতে
স্পর্শকে ঠেলে দূরে,
ঘরেতে বন্দী নিজেকে রেখেই
লোকালয় থেকে দূরে।
চোদ্দ দিনের অজ্ঞাতবাস
একাকী বিজন ঘরে,
সংক্রমণের তীব্রতা কমে
বাঁচে দেশ চিরতরে।
দেশের দশের মঙ্গল ভেবে
কোরোনাকো অবহেলা,
"করোনা" দমাতে "জনতা কার্ফু"
নয় এ-তো ছেলেখেলা।
পরিষেবা দেশে সীমিত খুবই
জনসংখ্যার মাপে,
নিস্তার পেতে সরাও নিজেকে
বাঁচে দশে ধাপে ধাপে।
নাগরিক হয়ে স্বদেশের প্রতি
দেখাও এটুকু দায়,
দেশকে বাঁচাতে লাগো উঠেপড়ে
সময় যে বয়ে যায়।


পরিশেষে বলি মন দিয়ে শোনো
বাড়ুক সেপারেশন,
"করোনা" এড়াতে নিজেকেই করো
"সোস্যাল আইসোলেশন"।।


[দুবাই, ২১শে মার্চ ২০২০]
©চিন্ময়