আঁতকে উঠি যখন চরাচর ঘুরে নিজের সাথেই দেখা হয়।
জতুগৃহ দেশ জ্বলছে, তাই আলপথে  হলদে আগুন।


চিৎকার গুলো উৎসবের পিছনে আবহগীত হয়ে ঋতুহীন অশ্রুতে মেশে।


একই সংকল্পে এক ভিখারি এক লুটেরা
শত্রু মিত্রের খেলা খেলছে যেন অনন্ত কাল ধরে।


আজকাল কেউ কারোর কুশলও জিজ্ঞেস করি না।
সময়ের সাথে  আমরাও হয়েছি এক এক জটিল ইশ্বর।


তবুও অনেক সাহসী কেউ অমাবস্যার আলোতে নেরুদাকে পড়ে চলেছে,
একটা দুটো কচি পাতারা তার উপরে ঝরে পরে।


শুধু এইটুকু আশা
উপুর হাতের উপর এসে জমা হয়।


ভিতরে ভিতরে গভীর ভিত খুঁড়ে  যারা
স্বেদ ও স্বপ্নে  জলকে ছুঁয়ে আছে,
তারাই বানাবে ঘরবাড়ি।
রোপন করবে সবুজ ধান ক্ষেত।


কলকাতা ১৭/৮/১৯