নদী তো বয়েই যায় আপন প্রবাহে
বাতাসও ঘোরেফেরে পৃথিবীর ‘পরে
আলোর তরঙ্গ সদা আঁধার ঘুচায়ে
জীবনের কথাচিত্র চলমান করে ।
দেহের শোনিত স্রোত বেঁচে থাকে প্রাণ
কর্মের জোয়ার ভাটা মনে রচে সেতু
জিন থেকে জিনে জীব বহে আত্ম মান  
পৃথ্বীর এ চক্রাকারে খেলা করে ঋতু ।


অনন্তের বহমান অসীম যাত্রায়
আমারও ছন্দধারা রিলে রেসে ধায়
যা কিছু মুখের মুখ বিকাশে মাত্রায়
স্রোতেই আকাশগঙ্গা দিশা খুঁজে পায় ।
আবহমান কালের নেই শুরু শেষ
উত্থান পতনে সৃষ্টি চলে অনিমেষ ।।
              -----