আমার খেয়া নৌকা খানি বাঁধিনু ঘাটের পারে ,
হড়কা ঢেউয়ে নাওখানি মোর ভাসিয়ে দিল তোড়ে  ।
যতন করে নাওখানি মোর তৈরী করেছিনু ,
বুঝিনি আগে নৌকাখানি এত হাল্কা ছিল ।
ঢেউয়ের স্রোতে নাওখানি মোর এমন মোচড় খেল ,
মোচড় খেয়ে নৌকার হাল বেহাল দশা হোলো ।
সুযোগ পেয়ে পোকায় তারে করল কুটি কুটি ,
আরতো উপায় নেইরে তাতে আছে বিষধর গুঁটি ।
সেই বিষেতে নাওখানি মোর হোলো যে ছারখার ,
এখন দেখি সেই বিষধর বিষ ঢালে চমৎকার ।
সেই বিষেতে নৌকাখানি  নীল যে হয়ে গেল ,
সেই বিষ নামাবার কি উপায় আছে বলো ।
সাপের বিষ ,খলেরও বিষ আছে বেশ ভালো ,
সাপের বিষ নামানো যায় ,কেমনে খলের বিষ নামে বলো ।
খল ,হিংসায় ,ভরা যে মোর নাওখানি টলমল ,
রক্ষাকর্তা এই বিপদে তুমি রক্ষা কর কেবল ।


**************************
বেলা - ১১ :০৫ মিনিট ।
০২ / ০৩ /২০২০ সোমবার ।
কেরাণিটোলা = মেদিনীপুর ।