বৃষ্টির পানিতে ভিজে অবিরত গ্রাম,
নতুন রঙে সেজে ওঠে অবিরাম।


দূরের আকাশ পানে কালো মেঘ ভাসে,
জলধারে খেলা করে দলবেঁধে হাঁসে।


নদীর পাড়ে চর জাগে দেখতে ভারি,
ধারে ধারে কাশফুল দোলে সারিসারি।


গাঁয়ের নতুন বধূ চলে ডিঙি নায়,
বৈঠা হাতে মাঝি নৌকা বেয়ে যায়।


ডালিয়া শিউলী ফুল বনে বনে ফোঁটে,
আনন্দে ভ্রমর অলি উড়ে উড়ে ছোট।


কিচির মিচির ডাকে পাখিদের ঝাঁক,
অন্তর রথে উড়ে ফড়িং খায় পাক।


শাপলা কুসুম ফুলে ভরে ওঠে ঝিল,
নীল গগনে পালক মেলে উড়ে যায় চিল।


হাঁসগুলো ডুব দেয় ছোট নদী খালে,
খলসে কাঁতল পুঁটি ধরা পড়ে জালে।


কলাপাতা খাঁ খাঁ রোদ ভীষণ গরম,
ভারি মিঠা তাল পিঠা রসনা চরম।


আমড়া জলপাই গাছের ডালে ঝোলে,
দুধ খেয়ে শিশু ঘুমায় মায়ের কোলে।


শরতে জ্যোৎস্না রাত কোমল কিরণ,
চাঁদের চাহনি দেখে জাগে শিহরণ।


তারা ভরা ঝলমল রাতের আকাশ,।
ধূমকেতু ছায়া পথ অবাধ প্রকাশ।


পুলকিত শিহরণে মনে জাগে সাড়া,
শরতের  উৎসবে  মেতে ওঠে পাড়া।


www.banglarkobita.com
www.bangla-kobita.com