এখনও হৃদয়ে  জেগে থাকে সে গভীর ক্ষত,
পলাশের শিমুলের মতো;
যখন বিসন্ন মানুষেরা ঘোরে ফেরে; ক্লান্ত হয়-
যখন অনন্ত আকাশ  ভরে ওঠে  দীর্ঘশ্বাসে।
দু একটি বাবলা পড়ে থাকে নিরাশার মরূতটে;
জীবনের গ্লানি বয়।
আজ আর কেউ ভাল নেই। ত্বুবুও বিশ্বাসে ;
নিশ্চুপ পাথরের মতো অনন্তকাল, পাষাণ অহল্যা হয়ে
অপেক্ষায়।  
                         কার ভাল লাগে?
প্রগাঢ় সুখের নেশা সব বোধ শুষে নেয় ।
যখন দক্ষিনা বাতাস মাঝ রাতে পৃথিবীর পরে
                                             আসে ফিরে
আশাহীন খবরের মতো;
ধুসর বেদনারা বাসা বাঁধে হৃদয়ের কোনায় কোনায়।


সেই নারী সেই প্রেম; গভীর বিরক্তি নিয়ে বেঁচে থাকে
সবার হৃদয়; যখন আরো গভীর ভাবে তারে
শীতের বোধের মতো  আকঁড়ে ধরে।


কেন তারা থাকে এ মৃত্যুপুরে,
আর কেন যায়-ছেড়ে
                                              বড় বিস্ময়!


ঘৃণার পুকুরে মীন হয়ে কে বাঁচে লজ্জায়।
যখন মাটির গন্ধ ভরে থাকে গভীর বেদনায়।