মনে আছে শেষটা?
নীল শাড়ির বেশটা!
সোনালী স্কার্ফে ঢাকা ছিল কেশ।
হালকা রঞ্জক ঠোটে মানিয়েছিল বেশ।


সেই ছিল শেষটা!
উজ্জ্বল প্রাণবন্ত ছিল হাসিটা,
শাড়ীর ফাকে নাভী ডাকবার প্রচেষ্টা,
ছবির ফ্রেমে ছিল গোলাপি মাধুর্যতা।


সেই ছিল শেষটা!
আমাকে ক্ষেপাচ্ছিলে বেশ করে,
কোলে তুলতে গেলে নাকি যাব মরে,
কোলে উঠেছিলে শেষে, বাহানাটা বেশ মন্দ না।


রাগ ছিল না,  ছিল অভিমান,
বাহুতে বসে দিয়েছিলে আহবান,
হাতের বাঁধা, ঠোটের আবদার
নিয়েছিলে হাঁসি ছলে, সেই শেষটায়।


চুড়িগুলো বেশ মানিয়েছিল হাতে,
সেই শেষটায়,
আঙ্গুল জুড়ে খুশির খেলা চলছিল,
এক আল্পনা রাঙ্গা আংটির উছিলায়।


এভাবেই ইতি হয়েছিল সেই শেষটার
আর হয়নি কভু, তোমাকে কাছে পাবার
তুমি হারিয়ে গেছ তবে,
হারিয়ে যায়নি শেষটা।


তোমার হৃদয় জুড়ে বেঁচে থাকুক
সেই শেষটা,
যেখানে তোমার চলে যাওয়া,
সেখানে আমার স্মৃতি সেই শেষটা।