আজনবি


আপন আলয় ছাড়িয়া আজনবি আমি প্রবাসে করি বাস,
শূন্য মরুতে ঘর বাধিয়া হই আমি শৃঙ্খলিত দাস।


অন্যের সুখের তরে হাসিমুখে  নীলকন্ঠ করিয়া পান,
অতিথি পাখি হইয়া আমি নিজের দেশের রাখি সম্মান।


আরব বেদুইনদের দিবা রাত্র করিয়া আমি তুষ্ট
দেশ মাতৃকারে ভালো  রাখি লোকাইয়া নীলকষ্ট।


মাতার বক্ষ শূন্য করিয়া আমি রই দূরদেশে,
স্ত্রীপুত্র আয়েশে রাখিবার  তরে রই নিসংগ প্রবাসে।


হৃদয়ে রক্তক্ষরণ হই যখন স্ত্রী পুত্র করে কুমন্ত্রণা,
কষ্টের সঞ্চয় লইয়া তাহারা করে যখন তালবাহানা।


আজনবি আমি বিপদে ছুটিয়া যায় আপন দূতাবাসে,
গৃহহীন মিসকিন ভাবিয়া কর্তা ভ্রুকুচকিয়ে অট্টহাসে।


আজনবি আমি শূন্য হস্তে নিরুপায় হইয়া থাকি,
মোর কড়িতে সাহেব সাজিয়া মোরে দেই ফাকি।


ঘাম ঝড়ানো কড়ি মোর টাকশালে রাখিয়া রিজার্ভ,
টকশোতে সুশীলরা মোরে হীন করে দেখাইয়া মহাভাব।


আজনবি আমি আপনার কাছে হইয়া মূল্যহীন,
কষ্টগুলো সংগে করিয়া নিসংগ যাত্রী  হই একদিন ।