আজকাল, এ পবিত্র কবিতার আসরকে কাদা জলে ঘোলানোর প্রবণতা বড্ডো দেখা দিয়েছে ! কবির সংখ্যা বেশ বেড়ে গেছে, তাঁর মন্তব্য আহরনে । নিজের পাতায় নিজে একাধিকবার মন্তব্য লিখে তার সংখ্যা বাড়ায় । এতে কেউ কিছু বলে না !(বলিলেও মানিরা শুনবে না হয় তো) , অথচ তাঁর বিদ্যাজ্ঞান আছে- (মেধা ?) । সহজে নাম বা নিজ প্রসার কি করে বাড়ে
সে বিষয়ে বেশ রপ্ত ।
আর এক শ্রেণী গড়ে প্রায় কবিতা না পড়ে, আঃ-হাঃ ! কি ভাল কাব্য- লিখে, মন্তব্য করেন । মহাশয়ের জানা আগের ভোলা কবি, একটা মন্তব্যে প্রত্যুত্তর অবশ্য দেবেন , এতে তাঁর মন্তব্য সংখ্যা বাড়বে । যদি এ সব বন্দ হয় তবে আসরের দুর্দিন আসবে , সংখ্যা কমে যাবে , অতএব খবরদার ! তাঁরা স্বাভিমানে সসম্মানে টিঁকে থাক ।
      নামটাই যখন জীবনে প্রধান কাম্য, তখন একটা সহজ সুপথের কথা বাৎলাব ।
মহৎ কাজ দুনিয়ায় অনেক আছে ,অতি সহজে নিজের নাম করা যায় ।
     রাজপথে দাঁড়িয়ে, দু’চার মন্ত্রীর নামে করো- অকথ্য গালাগালি । পুলিশ এসে ধরবে । বড়োজোর ছ’মাসের জেল , পরপর এরকম আরো দু’একবার করো । শেষে কোন দলে যোগ দাও । কেহ দলে না নিলে ,নির্দলীয় প্রার্থী হিসেবে ভোটে দাঁড়াও । দেখ ,দিব্যি জিতে গেছ ! তারপর সামনে নামের ময়দান খোলা, কোন পবিত্র কাজের হবে না জলঘোলা ।