নেই শরতের শিশির ভেজা সকাল
   নেই প্রীতি মাখা স্নিগ্ধ বিকেল
  দগ্ধ ক্ষোভ,পোড়া রোদের গন্ধ
একাই বয়ে বেড়ায় ফেরারি বিহঙ্গ।
  কাঁকড়ার খোসার মত শুন্য নীড়
সাথীহারা আশাহত শোকের ভীড়
জানা গেল চেনা হলো সব প্রেমির
বারবার আঘাত হানে বিষমাখা তীর।
   নীল আকাশে মেঘের ভেলায়
      পাল তুলে উড়ে চলে চিল
ডুরি কাটা ঘুড়ির মতো ভেসে বেড়ায়
ফেরারি বিহঙ্গ খুঁজে ফিরে স্নেহশীল
       যখন যারে করেছে আপন
       সেই দিয়েছে  নিঠুর কাঁপন
     ভাঙ্গনের সুর মাতাল ঢেউ তুলে
ক্ষরস্রোতা নদী যেমন আঘাত হানে কুলে
ঝিনুক থেকে যেমনি মুক্তা খসায় লোকে
স্বজনেরা তার বিক্ষত চিহ্ন এঁকেছে বুকে
   ফেরারি বিহঙ্গের রংচটা ধুসর দিন
   কাটে না গো, সে যে এখন পরাধীন।