অনুপ্রাস ভাবনা-০১
আশরাফুল ইসলাম


বাক্যমধ্যে বর্ণ বা বর্ণগুচ্ছ যুক্ত বা বিযুক্তভাবে একাধিকবার ধ্বনিত হলে অনুপ্রাস— এর তৈরি হয়৷


অনুপ্রাস শব্দালঙ্কারের একটি প্রকার৷


বাংলা সাহিত্যে তিন প্রকার অনুপ্রাসের প্রাধান্য লক্ষ্য করা যায়— (ক) অন্ত্যানুপ্রাস, (খ) বৃত্ত্যনুপ্রাস, (গ) ছেকানুপ্রাস৷ বৃত্ত্যনুপ্রাস শ্রেষ্ঠ, আচার্য উদ্ভট(৮ম শতাব্দীর) বৃত্তিকে প্রথম অনুপ্রাসের সাথে সংযুক্ত করেন৷ ভরতমুনি এই অনুপ্রাসে অবদান রেখেছেন৷
বাংলা সাহিত্যে— এর বহুল ব্যবহার দেখা যায়৷ ছেকানুপ্রাস গৌণ৷ (ঘ) শ্রুত্যনুপ্রাস প্রকৃতে অন্ত্যানুপ্রাসের ই একটা অংশ৷ এর প্রবর্তক আচার্য দণ্ডী৷ ইংরেজির অনুসরণে আচার্য শ্যামপদ চক্রবর্তী (ঙ) আদ্যানুপ্রাস ও (চ) মধ্যানুপ্রাস— এর প্রচলন করেন৷ (ছ) লাটানুপ্রাস— এর ব্যবহার বাংলায় প্রায় নেই বললেই চলে৷


অনুপ্রাস মোট সাত প্রকার৷ ক) অন্ত্যানুপ্রাস, খ) বৃত্ত্যনুপ্রাস, গ) ছেকানুপ্রাস, ঘ) শ্রুত্যনুপ্রাস, ঙ) আদ্যানুপ্রাস, চ) মধ্যানুপ্রাস, ছ) লাটানুপ্রাস৷


গ্রন্থসূত্র:—
১/ বাঙলা অলঙ্কার— জীবেন্দ্র সিংহ রায়৷
২/ বাংলা কাব্যের রূপ ও রীতি— ড. ক্ষুদিরাম দাস৷
৩/ অলঙ্কার অন্বেষা— নরেন বিশ্বাস৷
৪/ ভাষা শিক্ষা— ড. হায়াৎ মামুদ৷