জীবনের অনেক বসন্ত কেটে গেলো অকারণে,
ঝরে গেলো হাজার আকাঙ্ক্ষা, না ফোটা কলির মত,
আমি এক নীরব দর্শক, হৃদয়ে প্রচুর ক্ষত;
এ পৃথিবীর বন্ধুর পথে— হেঁটেছি ক্লান্ত চরণে৷


দেখেছি মেঘমুক্ত আকাশে নীলের কী সমারোহ,
নানা বিহঙ্গের উড়ে চলা— দিগন্তের সীমানায়,
নিজেকে হারিয়েছি আনন্দে, সুন্দর এ বসুধায়;
ভরা যৌবনের আগমনে জেগেছে দারুণ মোহ৷


আবার দেখেছি বজ্রবৃষ্টি, ঝড়ের কঠিন রূপ,
সৃষ্টি ধ্বংসের তাণ্ডব দেখে ফেলেছি চোখের জল,
দুর্বল মেরে ফুর্তি করেছে— ক্ষমতাশালীর দল;
নির্বল আমি রয়েছি ক্ষোভে— অসহায় হয়ে চুপ৷


দেখেছি সর্বহারার দলে, নিঃস্ব হয়ে পথে ঘুরে,
শুনেছি পথশিশুর কান্না, ধর্ষিতার কী চিৎকার;
এক সৃষ্টি অন্য সৃষ্টি করে— অবলীলায় সংহার!
শোকের পাহাড় বুকে নিয়ে, ছুটে চলি ওই দূরে৷


মরণ-যাত্রীর কাছে বসে, রজনী করেছি পার,
কেউ গিয়েছেন প্রশান্তিতে, কারও কষ্টের গমন,
দেখেছি আমি ব্যর্থ চেষ্টায়— জীবন বাঁচাতে রণ;
মৃত্যুর স্বাদ নিতেই হবে, পাবে নাতো কেউ ছাড়৷


রচনাকাল— ১৯,১১,২০১৯