জীবনের সন্ধ্যাবাতি জ্বালাতে এসো না,
যেটা নিভে গেছে বহু আগে;
কোনো এক অজানা ঝড়ের আক্রমণে৷
আকাশের নীলে ধরেছে অন্ধকারের সাজ,
এখন আঁধার ভালো লাগে, যাতনারা বন্ধু হয়ে গেছে৷


প্রিয়তমার স্ফীত বক্ষকে বিতৃষ্ণা করেছে গ্রাস!
অঙ্গের নাচন থেমে আছে, সে এখন বড় ক্লান্ত;
বৃদ্ধের চাদরে সমস্ত শরীর ঢেকে অপেক্ষার পালা—
জীবনের গ্লানি ঝেড়ে অনন্তের পথে যাত্রা শুরু হতে৷


স্বপনের রাজ্যে শকুনের উড়াউড়ি তাই ভীত মন,
অসময়ে হারাবার চায় এই অশান্ত ধরণি ছেড়ে—
প্রারম্ভেই ইতি টেনে পালাবার৷


রচনাকাল— ০৫|১১|২০২০