কবিতা:- কবিতা আজ অস্তিত্ব খোঁজে(৫৫০ তম)
           মনোজ ভৌমিক


কবিতা এখন আর ব্যাভিলনীয় সভ্যতার ধ্বংসাবশেষে চোখ রাখে না।
রোম সাম্রাজ্যের ধ্বংস সময়ে রাণী মেরি আঁতয়ানেতের বিস্ময়কর প্রশ্নের উত্তর খোঁজে না।
এমনকি রোম সম্রাট নীরোর ধ্বংসোন্মুখ সভ্যতার বুকে বসে নিমগ্ন চিত্তে বাজানো ভায়োলিনের শব্দে কান পাতে না।
এখন ও সিন্ধুনদ উপত্যকায় গড়ে ওঠা উন্নয়নশীল দুই সভ্যতার
ধ্বংসের কারণ খুঁজতে খুঁজতে  প্রশান্ত মহাসাগরের তীরে ছোট্ট দ্বীপে নাগাসাকি- হিরোসীমায় চোখ রাখে!
এখন এই উপত্যকায় কেবল ধর্মান্ধ বারুদের গন্ধ!!
যা বাবরীয় সাম্রাজ্যের শুরু থেকে দেখেছে ও!
আর দেখেছে ছদ্মবেশী ইংরেজ শাসনকালে।
এখন কবিতা একাগ্রচিত্তে আপন অস্তিত্ব খুঁজতে চায়...
তাই ও এখন উলঙ্গরাজপথে একা হাঁটতে ভয় পায় না।
কারণ, ও বুঝে গেছে এ উপমহাদেশে ধর্ষণই শেষ কথা!!
দৈহিক ধর্ষণ - মানসিক ধর্ষণ -রাজনৈতিক ধর্ষণ আর ধর্মান্ধতার দোহাই দিয়ে মানবিক ধর্ষণ!!
দীর্ঘ চারটে দশক হাঁটার পর পঞ্চম দশকের শেষে একটু স্বস্তির শ্বাস নিতে চেয়েছিলো!
হঠাৎ কারা যেন বললো,"তোমার পূর্ব পুরুষদের নামের প্রমাণ পত্র দেখাও।
হতবাক! বিষন্ন মনে কবিতা আজ অস্তিত্ব খোঁজে...