আমি রুবিনা
           জামাল ভড়
আমি রুবি না , আমি রুবিনা
আমি ছেলে না , আমি এক মেয়ে
আমি বাংলাদেশী না , পাকিস্তানিও না
আমি এক ভারতীয় , যে ভারত হিন্দু মুসলিম খ্রিস্টান
বৌদ্ধ শিখ ও জৈনের ;শত শত বছরের পাশাপাশি বাস ।
আমি রুবিনা সাদাসিধে এক বাঙালী তনয়া
কলেজে যেদিন বলি নিজের পরিচয়
বন্ধুরা বলেছিল ,'তুই বাঙালী ?
আমরা তো ভেবেছি মুসলমান !'
সেদিন ওদের বোঝাতে আমার কালঘাম ছুটে গিয়েছিল
যে বাঙালীও মুসলমান হয় !
ঈদে যেমন নতুন সালোয়ার কামিজে সাজি
শারদীয়া উৎসবেও মাতি
বড়দিনেও খ্রিস্টমাস ট্রিতে আলোকসজ্জা করি
কেক কেটে আমোদ করি ।
বিদিশার চুলে আমার চুলে কোন তফাৎ নেই
আমার ভাই মকবুলের রক্ত আর মৈনাকের
রক্তে কোন প্রভেদ দেখিনা ।
যেদিন আমাদের পাড়ার ঈষিতাকে
কে বা কারা অপহরণ করে সেই সংবাদ শুনে
আমি খুব কেঁদেছিলাম অথচ ঈষিতা আমার বন্ধু নয় ।
যেদিন সংবাদপত্রে পড়লাম বাগমুণ্ডিতে বৃদ্ধ বাঁশিঅলা
রহমতকে জয় শ্রীরাম না বলার অপরাধে
বেধড়ক পিটিয়ে হাসপাতালসই করেছিল
সেদিন খুব ভয় পেয়েছিলাম ।
ডাক্তার দেখাতে গিয়ে ধর্ম যাচাই করিনা
আমার আব্বার যখন রক্তের প্রয়োজন হয়েছিল
তখন জানতেই চাইনি কার রক্ত , হিন্দুর না মুসলমানের
আমার চাচা যখন ক্লাবে প্রতি বছর রক্তদান করে
তার রক্তের বোতলে লেখা হয়না ধর্ম ।
আমি এ দেশের আর লক্ষ মেয়ের মতো
সাধারণ এক মেয়ে , অতি সাধারণ এক মেয়ে
যার দুচোখে অনেক স্বপ্ন কবে আমরা
মুক্ত হব এবম্বিধ নানা সংস্কার হতে !