দীঘির পাড়ে একলা বসে রবিবারের দিনে  
কবিমশাই ভাবেন বসে কি সব ঘোড়ার ডিমে  
সেই ডিমেতে তা দিলে তো বেরোয় আস্ত হাতি
দিনের আলো নিভে গেলে জ্বলে জোনাক বাতি
জোনাক আলোয় মন্দ ভালোয় চোর ডাকাতের মেলায়
মেলায় মানুষ যাচ্ছে ভেসে আনন্দের ই ভেলায় ।
এই ভেলাতে চেপেছিলো লখিন্দরের বউ
স্বর্গ থেকে পেয়েছিলো প্রাণ ফেরতের ফাউ ।
বরের কথায় পড়লো মনে বিয়েবাড়ির ভোজন
বিয়ে হবে পাশের গ্রামে সঙ্গে যাবে দুজন
একজনকে তো ভালোই চিনি ছোটোবেলার থেকে
খেলি ঘুরি পড়ি শুনি মিলি পাড়ার ঠেকে ।
অন্যজনের নামটা জানি বাকি সব অজ্ঞাত
জোনাক রাতে আলো আঁধার ভোজেতে ডিম ভাত ।