করনা নিয়ে আমার কোন দুশ্চিন্তা নেই,
এটা নিয়ে ঘরওয়ালা সাথে প্রতিদিন ঝগড়া
তিনি ব্যাস্ত উদ্বেগ উ্যকন্ঠার বেড়াঝালে,আমি ব্যাস্থ সাহিত্য নিয়ে,
কোন বইটা হবে,কে করবে শব্দ শৈলী কেমন?
প্রকাশক মৃদুল রহমান, বিপননে অনন্ত উজ্জ্বল এর সাথে ম্যারথন  আড্ডা, কখনো তা সাড়ে তিন ঘন্টা
ঘরওয়ালী আরো বিগড়ে যান, ভাংচুর বাসায় বাড়তে ই থাকে।


আমি যে নিরো, কাকে বোঝাই।


করনা নিয়ে আমার বিন্দুমাত্র মাথা ব্যাথা নাই,
মুক্তিযুদ্ধ, বিশ্বযুদ্ব, নানা সংকটে যদি সাহিত্য হয়, আবদান রাখে,
তাহলে করনাই " তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ"।


করনা নিয়ে, আমার উদ্বিগ্নতা শুন্যের  কোটায়,
আমি বেশ উপভোগ করছি, বিশ্বের পরাশক্তির নতজানুতে ।
একটি অদৃশ্যমান ভাইরাসে, বিশ্ববাসী গৃহবন্দী
সেটাতেই আমার যত উন্মাদনা, আবেগ


করনা নিয়ে আমার কোনই বিলাপ নেই। ছিলও না কখনও।
যে বিশ্বের শক্তিগুলো দাপিয়ে বেড়াতো প্রতিদিন
আল্লাহর অস্তিত্বকে ভুলতেই বসেছিল, তারাই হাবুডুবু খাচ্ছে,  দিনের পর দিন।


করনাকে, আমি  বেশ উপভোগ করি আজ কাল
প্রতি মুহুর্তে মৃত্যুর ভয়ে যাদের ভিত থাকার কথা,
আজ তারাই, বুজতে শিখেছে বাচার লড়াই কতটা কঠিন
বেচে থাকার দৌড়ে সবাই সাদা কালো এক ।


করনা নিয়ে মরে যাবার কোন ভয় নেই আমার,
আমি যে প্রতিদিন থেকে যুগ যুগ থেকে  করুনায় বেচে আছি।



" করনা "নিয়ে আমার কোন মাথা ব্যাথা নেই।
করনা আমাদের শিখিয়েছে হারিয়ে যাওয়া বন্ডিং,


করনাতে যদি বিশ্ব সাহিত্য রচিত না হয়
তাহলে, আজ থেকে ডিকশিনারি থেকে সাহিত্য নির্বাসিত হউক চিরতরে ।।
আমি সারা দিন মান বেচে থাকার চেয়ে করনা তৃতীয় বিশ্বযুদ্ব "সাহিত্য নিয়েই  মহা ব্যাস্ত।


আমার করনা নিয়ে,
নেই কোন আবেগ,উদ্বেগ,হাহাকার,আহাজারি।


আমি করনাকে বিধাতার করুনায় মেল্ট করেই,বেচে থাকব
অনন্তকাল । আজীবন। সরলরেখায়।



জুয়েল সাদত


ফ্লোরিডা   / usa


[email protected]