হে বাসর শুনেছি তুমি নাকি অমর!
নব বধূ-বর সনে বাঁচো প্রতিক্ষণে-
ফুলশয্যার শরণে,- আসি পরস্পর,
নব-দম্পতি, কেলি রতি পাণিগ্রহণে!


পরম্পরা হবে গড়া মধুর মিলনে,
ফুলেল সুবাসে প্রফুল্ল আশে দোসর-
অবগুন্ঠন ঘুচে গণি আঁচে প্রহর-
বাসরসজ্জায় বসি খাটিয়ায় কনে!
দৃঢ় বলে দ্বার খুলে বর প্রবেশিলা-
অধীর নেত্র যুগল হলো বিনিময়,
বিনিদ্র রমণ-রমণী রজনীময়-
বাসরবাসে হর্ষে পতি-পত্নী হইলা!


প্রাতে উঠি দেহ দুটি করি জোড়কর-
কহে,- "যেন বিবাহে আবর্তে এ বাসর"!
                ----০----


শব্দার্থ :-
শরণে = আশ্রয়ে।
কেলি রতি = ভালোবাসা।
পাণিগ্রহণে = বিবাহের মাধ্যমে।
ফুলেল = পুষ্পময়।
দোসর = সহচর / সঙ্গী।
অবগুন্ঠন = ঘোমটা।
ঘুচে / ঘোচে = সরানো / ঘুচানো।
গণি = অপেক্ষা করি / গণনা করি।
আঁচে = আঁচ করি / অনুমান করি।
প্রহর = সময়।
অধীর নেত্র = উৎসাহী চোখ।
বিনিদ্র = জাগ্রত।
হর্ষে = আনন্দে।
জোড়কর = দুই হাত জোড় করে প্রণাম।
"যেন বিবাহে আবর্তে এ বাসর" = বাসরবাস / সহবাস সকল নারী-পুরুষের জীবনে যেন বিবাহ অনুষ্ঠানাদির মাধ্যমেই বারবার আবর্তিত ও প্রাপ্ত হয়।
                                          ----০----০----০----