তব অপরূপ সৌন্দর্য তরে-
প্রশংসার স্তুতি চৌদিকে ঘুরে,
সকলেই আনন্দে জ্ঞাত স্বরে-
প্রেম-ধ্বনি প্রচারে বারেবারে!


প্রশংসার যোগ্য প্রাপ্ত সম্মান-
নর-নারী উভয়ের সমান,
এরূপ কেন হেরি বর্তমান-
সমাজে যেন নারীই প্রধান?
রূপের বিধান?


তোমার মৃদুমন্দ ব্যবহার-
বিশ্ব মাঝে বিরাজে বারবার,
এ যেন শান্তি শিক্ষার প্রচার-
শ্লোকরাশি গীত যথা গীতার!


বিশ্ববাসীর শ্রুতিময় গান-
নর-নারী উভয়ের সমান,
তোমার কন্ঠের মধুর তান-
নর হইতে এতো ব্যবধান?
ধর্মীয় বিধান?


তোমার সর্বদা দিব্যি বিহার-
সংসার কর্মে ঘর্মে বারবার,
সবার জন্যে সুস্বাদু খাবার-
কিরূপে ত্বরায় করো তৈয়ার?


সংসারে তিল তিল অবদান-
বাবা ও মা উভয়ের সমান,
মাতৃ স্নেহধন্য অনন্য ত্রাণ-
বাঁচান প্রতি সন্তানের প্রাণ!
স্নেহের বিধান?


তোমার চির যৌবন মুরতি-
প্রেমিকেরা ঝোঁকে করে আরতি,
লভিতে স্বীয় পার্থিব প্রগতি-
বংশ বর্জনে শুধু বঁধু গীতি!


প্রতি দম্পতি কৃপণ পাষাণ-
বর-বধূ উভয়েই সমান,
বধূরা স্বহস্তে ভেট পাঠান-
শ্বশুর ও শাশুড়ীকে সমান!
প্রেমের বিধান?


তব আচ্ছাদিত গোপন ছায়-
কামাতুর নর সর্বদা ধায়,
ইতর স্বভাবে প্রভাবে প্রায়-
দৈবিক জ্ঞান নিয়ত হারায়!


জৈবিকতার স্বাভাবিক ঘ্রাণ-
রমণ ও রমণীর সমান,
কি কৌশল কৃপায় সমাধান-
নারী পায় সর্বদা পরিত্রাণ?
দৈহিক বিধান?


অনুভবে পাই দৈবিক বার্তা,
মর্ত্যরূপী তুমি ক্ষুদ্র বিধাতা?
তোমার মাঝে কি সদা বিরাজে-
কুমারী, যুবতী ও নারী সেজে,
প্রেমে মজে সহজে, পরমাত্মা?
          ----০----