//হাবিজাবি মন//


হাবিজাবি মন, ভাবে আজগুবী
হা হা করে হাসে, থাকে হাসিখুশি
হামাগুড়ি দেয়, হাঁটে হন হন
পিতা মাতা নেই, আছে মাসী পিসী।


সব কাজ করে, ফরমাশ খাটে
পয়সা পায় না, আহারটা জোটে
ঘুমোয় চাতালে, স্নান ঐ পুকুরে
প্রকৃতির ডাকে, বন ও বাদারে।


শিক্ষা পায় নি, পাবেও না আর
মাথায় ঢোকেনি, কী যে অধিকার
আঠারো বছর, দেখেছে জীবনে
বুঝতে পারেনি, ইচ্ছার মানে।


তাঁর এক মন, এখনো নিখাদ
সরলতাটাই জীবনের সাধ
দেখা হলে হাসে, হাসি নিষ্পাপ
আমাকে ভাবায়, সে হাসির ছাপ।


'অনাথ' নামটা, কে দিয়েছে তাঁকে!
এসে গেছে নাকি, উপহাস থেকে!
তাঁর ভাবনাতে, আঠারো আসেনি
সরল ভাবনা, হিসাব রাখেনি।


যৌবন সুখ, বোধহয় জানেনি
তাঁর হাবেভাবে, প্রমাণ পাইনি
তাঁর জ্ঞানে শুধু, কাজই মুখ্য
সে তো আছে সুখে, কোথায় দুঃখ!


চলতে চলতে, সেও জেনে যাবে
কীসে কীসে, জীবনের সুখ ভবে
তখনই তো হবে, মন চঞ্চল
লোভ এসে, লাভ ক্ষতিতে জুড়বে।


আর থাকবে না, হাবিজাবি মন
মনটা তখন, পার্থিব বন
ছোট এক ইতিহাস যা গড়েছে
করতে থাকবে, তারই বিশ্লেষণ।


সুবীর সেনগুপ্ত