( বিশ্ব কবিতা দিবস-  ১৯৯৯ সালে ইউনেস্কো ২১ মার্চ তারিখটিকে বিশ্ব কবিতা দিবস হিসেবে ঘোষণা করে। এই দিবস পালনের উদ্দেশ্য হল বিশ্বব্যাপী কবিতা পাঠ, রচনা, প্রকাশনা ও শিক্ষাকে উৎসাহিত করা। )
---------------------------------------------------------------


প্রাণের ভেতরে প্রাণ জেগে উঠে, ভালোবাসা-জলে ভেজা
ছন্দের সুরে শব্দের খেলা, ভাবনার চয়নতা;
কবি ও কবিতা জীবনের কথা অমূল্য ধনরাজি,
প্রেম ও প্রকৃতি এক সাথে হাসে- হৃদয়ের ব্যাকুলতা।


ঘর ছেড়ে যায় মানব-প্রেমিক, অতুল বৈভবের
পশরা সাজায় সবিনীত হয়ে প্রেম-রঞ্জন মেখে;
পোয়াতি-বেদনা জেগে উঠে প্রাণে, কবিতার সৌরভে
কবিদের মনে হরষণ জমে ধরণীর কলা দেখে।


সঙ্গী করেছে দুঃখকে কবি সৃষ্টির উল্লাসে,
কবিতার বুকে খুঁজে ফেরে নিতি বিস্তর প্রহ্লাদ;
সৃষ্টির সাথে স্রষ্টাও কাঁদে নবজীবনের প্রেমে,
কবিতার সুর ঘুচায় মনের অনন্ত অবসাদ।


কবিতা কি প্রাণ? জীবনের গান? বেদনা মাখানো গীত?
কবিতা কি প্রেম? রাধিকার শ্যাম? মজনুর লাইলি সে?
কার বুকে রাখি দুঃখবোধের জীবনের ছায়াছবি!
নাই কোন প্রিয় জগতের মাঝে কবিতার বিশ্বাসে।


তুমি কি আমার কবিতা হবে? অনন্ত পারাবারে
দুঃখকে কেড়ে সুখের বিলাসে মেখে দেবে, ওগো মেয়ে!
বিশ্ব কবিতা দিবসের বাণী শুনছি তোমার স্বরে,
প্রাণোচ্ছাসের কল্পনা গেঁথে আজো আছি তাই চেয়ে।


২১/০৩/২০১৯
মিরপুর, ঢাকা।