মহাবিশ্বের মহাকালের গভীরে
মহা সমুদ্রের ভীরে
নিরন্তর চলছি আমি একা
কত মহানজনের পেয়েছি দেখা
তাদের শিক্ষা কিছুটা শিখে
চলি অনন্তকালের দিকে
নিরন্তর সন্তর্পনে চলি নিরবধি
যেমন ঝর্ণা ধারা ও নদী।


যত মহামানব মহান মনীষী
বিশ্বকে করেছে আলোকিত যেমন রবি-শশী
সে আলো হতে একটুখানি
আমার জীবনে আনি
করবো কিছুটা রঙিন
শত বাধা উপেক্ষিয়া নিত্যদিন।


জীবনের প্রতি বাঁকে বাঁকে
কতনা দুঃখ কষ্ট থাকে
সকল ব্যাথার মাঝে
সকাল সাঁঝে
সকল যাতনা অভিমানে
খুঁজি জীবনের মানে।


তবু সদা করি স্মরন
আমার এ ক্ষণিকের বিচরণ
কেউ রাখবেনা মনে
তবু প্রকাশ হবে ক্ষণে ক্ষণে
সবকিছুর একদা হবে ইতি
রয়ে যাবে স্মৃতি
এপার ওপারের সাথে হবে মিলন
দুই পারের সেতু সে মরন।